প্রথম পারিশ্রমিক ছিল ২০ হাজার টাকা : প্রভা

নপ্রিয় মডেল-অভিনয়শিল্পী সাদিয়া জাহান প্রভা ছোটবেলায় নাকি অনেক বইয়ের পোকা ছিলেন। ছোটবেলায় রূপকথার বই ছিল তাঁর ভীষণ প্রিয়। এনটিভি অনলাইনের সঙ্গে আলাপে প্রথম পড়া বইয়ের কথা ছাড়াও জীবনের উল্লেখযোগ্য প্রথম অনেক ঘটনার কথা বলেছেন প্রভা।প্রথম স্কুল : শরীয়তপুরে অবস্থিত কিশালয় কিন্ডারগার্টেন স্কুল।

প্রথম শিক্ষক : আমার মা ছিলেন আমার প্রথম শিক্ষক। মায়ের কাছে আমার প্রথম হাতেখড়ি হয়েছে। মা কিন্তু কিশালয় কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষিকাও ছিলেন। পড়ায় ফাঁকি দিলে মা অনেক বকা দিতেন। আমি মায়ের হাতে অনেক মারও খেয়েছি।

প্রথম বিজ্ঞাপন : ডেইলি স্টার পত্রিকার ১৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে ২০ সেকেন্ডের একটা বিজ্ঞাপন করেছিলাম। প্রথম বিজ্ঞাপনের মডেল হওয়ার অভিজ্ঞতা ভালোই ছিল। কারণ, বিজ্ঞাপনটি প্রচারের পর অনেক সাড়া পেয়েছিলাম। এই বিজ্ঞাপনের পরেই সানসিল্কের একটা বিজ্ঞাপনের প্রস্তাব পেয়েছিলাম। তখন আমার চুল অনেক সুন্দর ছিল।

প্রথম অভিনীত নাটক : ২০০৬ সালে প্রথম নাটকে অভিনয় করেছিলাম। নাটকটার নাম ‘লস প্রজেক্ট’। ইফতেখার আহমেদ ফাহমি পরিচালিত নাটকটিতে মোশাররফ করিমের বিপরীতে অভিনয় করেছিলাম আমি।

প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর অভিজ্ঞতা : নাটকের শুটিংয়ের সময় আমার চোখ খুব পিটপিট করত। কীভাবে ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে অভিনয় করতে হবে, এটা আমি জানতাম না। বিশেষ করে অভিনয়ের সময় আমার চোখ খুব ডিস্টার্ব করত। কাজ করতে করতেই অভিনয় আয়ত্তে নিয়ে এসেছিলাম। তবে আমি কখনো নার্ভাস ছিলাম না।

প্রথম পারিশ্রমিক : আমার প্রথম পারিশ্রমিক ছিল ২০ হাজার টাকা। প্রথম বিজ্ঞাপন করে এই টাকা পেয়েছিলাম। আমার মনে আছে, এই টাকা দিয়ে আমার কাছের সব প্রিয় মানুষের জন্য উপহার কিনেছিলাম। সবাই অনেক খুশি হয়েছিলেন।

প্রথম প্রেম : আমার ছোট মামা। মামার নাম বাদল। মামা আমাকে যেমন শাসন করতেন, তেমনি অনেক স্নেহও করতেন। মামা পেশায় একজন ব্যবসায়ী। মামা ছিলেন আমার প্রথম ক্রাশ। তাঁর ব্যক্তিত্ব আমার ভীষণ পছন্দ।

প্রথম পড়া বই : ছোটবেলায় শিশু একাডেমিতে আয়োজিত নাচ, গান, ছবি আঁকা বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে আমি পুরস্কার জিতেছিলাম। পুরস্কার হিসেবে বই পেতাম। পুরস্কার পাওয়া বইগুলো খুব মনোযোগ দিয়ে পড়তাম আমি। রূপকথার বই পড়তে বেশি ভালো লাগতো।

প্রথম শাড়ি পরা : স্কুলের একটা পিকনিকে সম্ভবত প্রথম শাড়ি পরেছিলাম। দিনটা খুব ভালোই কেটেছিল। কিন্তু আমার মা আমাকে বেশি সাজগোজ করতে দিতেন না। এমনকি ঠোঁটে লিপস্টিকও লাগাতে দিতেন না। মা বলতেন, ‘বেশি সাজগোজ করো না, স্কিন নষ্ট হয়ে যাবে।’ কিন্তু আমি সব সময় সাজতে চাইতাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.