দুধ-আনারস ছাড়াও যেসব খাবার একসঙ্গে খেলেই বিপদ

বেঁচে থাকার জন্য আমাদের খাবার খাওয়া খুব জরুরি। তবে সে খাবার অবশ্যই হতে হবে স্বাস্থ্যকর। নইলে তা স্বাস্থ্যের ক্ষতি বয়ে আনবে। কখনো কখনো আবার ভুল পদ্ধতিতে খাদ্যগ্রহণে হতে পারে স্বাস্থ্যের জটিলতা।যেমন আমরা কখনো দুধ আর

আনারস একসঙ্গে খাই না। এতে হজমজনিত সমস্যা হতে পারে। এমনকি খাবারের বিষক্রিয়ার কারণে মৃত্যুর আশঙ্কাও থাকে। কেবল এই দুটি খাবার নয়। এমন আরো কিছু বিপরীতধর্মী খাবার আছে, যেগুলো একসঙ্গে খেলে হজমে সমস্যা হয়। দেহে টক্সিনের মাত্রা অতিরিক্ত বেড়ে যায়। ফলে পানিশূন্যতা, অ্যাসিডিটির মতো সমস্যা দেখা দেয়।চলুন এবার দুধ আর আনারস ছাড়াও একসঙ্গে খাওয়া উচিত নয় এমন কিছু খাবার সম্পর্কে-

দুধ ও কোমল পানীয়
দুধ আর কোমল পানীয় কখনো একসঙ্গে খাওয়া উচিত নয়। এতে পেট জ্বালাপোড়া সৃষ্টি হয়। অ্যাসিডিটির জন্যও দায়ী। একসঙ্গে দুধ ও কোমল পানীয় খেলে মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে। এতে পেটে পাথরও সৃষ্টি হতে পারে।
দুধ ও কলা

অনেকেই দুধ আর কলা একসঙ্গে খেয়ে থাকেন। বিশেষ করে সকালের নাস্তায় দুধ, পাউরুটি ও কলা খাওয়ার অভ্যাস রয়েছে অনেকের। এই ভুলটি একদমই করবেন না। দুধ আর কলা একসঙ্গে খেলে হজমের গোলমাল হয়। এতে শরীরে নানা রাসায়নিক বিক্রিয়াও দেখা দিতে পারে। কলা আর দুধের স্মুদি যদি খেতেই হয় তবে সঙ্গে মিশিয়ে নিন এলাচ গুঁড়া। তাহলে আর হজমে সমস্যা হবে না।

টক ও মিষ্টি ফল
ফল খেতে অনেকেই ভালোবাসেন। তবে সব ধরনের ফল একসঙ্গে খাওয়া একদমই উচিত নয়। টক আর মিষ্টি ফল একসঙ্গে খেলে শরীরে ফ্লুইডের মাত্রা কমতে থাকে। সকালের দিকে টক ফল না খাওয়াই ভালো। এতে অ্যাসিডিটি বাড়ে। বিকালের পর কোনো ফলই খাওয়া উচিত নয়।
চিজ ও মাংস

পাস্তা বা পিৎজাতে আমরা এই দুটি খাবার একসঙ্গে খেয়ে থাকি। এই দুটি খাবারই প্রোটিন সমৃদ্ধ। তাই চিজ আর মাংস একসঙ্গে খেলে দেহের প্রোটিনের মাত্রা বাড়ে। সঙ্গে লিভারের প্রোটিনের মাত্রাও বৃদ্ধি পায়। যা স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ।

সূত্রঃDailyBangladesh

Leave a Reply

Your email address will not be published.