Breaking News

তাহসানের একটা ছবি এখনও রেখে দিয়েছেন মিথিলা

শোবিজ অঙনের সবচেয়ে আ’লোচিত জুটি ছিল এই তাহসান-মিথিলা। বিশেষ করে গত কয়েক মাস।তাহসানের সাথে ঘর বাঁ’ধার পর দারুণ এক রসায়ন। হুট করে সেই ঘর ভেঙে যাওয়া। নতুন করেমিথিলার স্বপ্ন সাজানো। এসব নিয়ে নিয়মিতই খবরের শিরোনাম হয়েছে। আজ যখন সারা বিশ্ব কাঁপছেকরো’নায়। যখন পাড়া মহল্লায় চলছে করো’না

প্রতিরোধের মাইকিং। কিংবা সামাজিক দূরত্ব মেনেপ্রা’ণঘাতী ভাই’রাসের কবল থেকে বাঁ’চার নানাবিধ নির্দেশনা। তখনই আবার আলোচনার টেবিলে মিথিলা-তাহসান। বলতে পারেন অনেকটা কাকতালীয়ভাবে।পুরো নাম রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী, গীতিকার, সুরকার, অ’ভিনেত্রী এবং মডেল। মিথিলা তার কর্মজীবন শুরু করেন একজন পেশাদার উন্নয়নকর্মী হিসাবে।শিক্ষাজীবন শেষে তিনি ব্র্যাকে একজন গবেষক হিসাবে যোগদান করেন। এরপর তিনি আ’মেরিকায় গিয়ে

মিনিয়াপোলিস পাবলিক স্কুল ডিসট্রিক্টে কাজ করেন। এক বছর সেখানে থাকার পর তিনি বাংলাদেশে ফিরে এসে স্কলাস্টিকায় হাই স্কুলে কাজ শুরু করেন।তিনি নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ে লেকচারার হিসেবেও কর্ম’রত ছিলেন। অ’ভিনয়েও সমানভাবে কুড়িয়েছেন সুনাম। ২০০৬ সালের দিকে সঙ্গীতশিল্পী তাহসানের সঙ্গে বিয়ে হয় মিথিলার। বিয়ের পরে উভয়ে যৌথভাবে বের করেছেন একাধিক গানের এ্যালবাম। ২০১৩ সালে এই দম্পতির ঘর আলো করে আসে একমাত্র কন্যাসন্তান আই’রা।কিন্তু হঠাৎ গণ্ডগোল। এক

নিমেষের ঝড়ে সব স্বপ্ন ভেঙে ছারখার। ২০১৭ সালের জুলাইয়ে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। পরে ২০১৯ সালের ৬ ডিসেম্বর ভা’রতের অন্যতম জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা সৃজিত মুখার্জিকে বিয়ে করেন মিথিলা।এ দিকে তাহসানও তার নিজের মতো করে সময় কা’টাচ্ছেন। নতুন করে ভাবছেন! এরিমাঝে অবশ্য তাহসানকে অনেকটাই ভুলে গেছেন মিথিলা। তাকে নিয়ে কোনো রকম মন্তব্যও করেন না তিনি।তবে এই নীরবতার মাঝে খুঁজতে খুঁজতে বেরিয়ে এলো নতুন কিছু। নিজের ইনস্টাগ্রাম থেকে

অ’ভিমানে তাহসানের সব ছবি ডিলিট করলেও একটা ছবি ঠিকই রেখেছেন।২০১৬ সালের দিকে কোনো একটা বাংলা নাট’কে তাহসানের বিপরীতে অ’ভিনয় করার দৃশ্য। অনেকটা রোমান্টিকও বলা যায়। সামনে তাহসান, আর চোখ সরাতে পারছেন না মিথিলা। এমনই একটা প্রতিচ্ছবি ওই ছবিতে।সম্প্রতি ছবিটা ভেসে বেড়াচ্ছে নেট দুনিয়ায়।

তাতেই শুরু আলোচনা। এমনকি অনেকে ইনস্টাগ্রাম খুঁজে ওই ছবিতে কমেন্ট করছেন। তার মধ্যে ফরহাদ খান নামের একজন লিখেছেন, ‘ভাবী আপনারা দুই জনই আমা’র সবচেয়ে প্রিয় ব্যক্তি।’‘আমি আপনাদের অনেক বড় ফ্যান। আপনার দুইজনের একসাথে কর্মজীবনগুলো এখনও খুব মিস করি।’ আহমেদ নামের একজন লিখেছেন, ‘এই একটা পিক কেন রাখছেন? আপনি তাকে যতোই ভুল বুঝেন সে আপনাকে অনেক ভালোবাসে।’

তবে কি এখনো নীরবে নিভৃতে তাহসানের ছবি দেখেন মিথিলা? ‘থাক না এই একটা স্মৃ’তি’-নাকি এমন ভাবনা থেকে ডিলিট করা হয়নি ইনস্টাগ্রামের দেয়াল থেকে এই ছবিটি!

Check Also

কুমিল্লার ঘটনা নিয়ে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ, ইউএনও-এএসপিসহ সরকারি কর্মকর্তাদের গাড়ি ভাংচুর

সিলেটের জকিগঞ্জে পুলিশ ও বিক্ষুব্ধ জনতার মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ভাংচুর করা হয়েছে ইউএনও, অতিরিক্ত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *