মেসির ফ্রি কিকের জাদুতে মোহাচ্ছন্ন ফুটবলবিশ্ব (ভিডিও)

বার্সেলোনাকে অগণিত শিরোপা, ট্রফি দিলেও দেশকে কিছু এনে দিতে পারেননি লিওনেল মেসি।

এবার খুশি করতে হবে আর্জেন্টাইনদের, স্প্যানিশদের নয়। তাই মেসির মনোযোগ শুধুই কোপা আমেরিকায়।বিষয়টি খুব ভালোভাবেই স্পষ্ট হলো রোববার ইকুয়েডরের বিপক্ষে সেমিফাইনালে।
এদিন দুর্দান্ত খেলেছেন মেসি। এক কথায় অসাধারণ, যাকে লা জাওয়াব বলে। কোপায় মেসির ফ্রি কিকের জাদুতে মোহাচ্ছন্ন ফুটবলবিশ্ব। এবারের কোপায় এখনও পর্যন্ত ফ্রি-কিক হয়েছে ৩০টির মতো। এর থেকে গোল হয়েছে মাত্র দুইটি। আর দুটিই এসেছে মেসির পা ছুঁয়ে।যদিও শুরুর দিকে একটি সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেছিলেন লিওনেল মেসি।গোইয়ানিয়ার অলিম্পিকো স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রোববার সকালে কোয়ার্টার ফাইনালে ৩-০ গোলে জিতেছে লিওনেল স্কালোনির দল।আর এই ৩ গোলেই অবদান ছিল মেসির।

অসাধারণ ফ্রি কিক থেকে একটি করেছেন নিজেই। বাকি দুটো করিয়েছেন ডি পল ও মার্টিনেজকে দিয়ে।মেসির অসাধারণ ফ্রি কিক দেখে তার ভক্তরা বলেছেন, মেসির বেলায় ফ্রি কিক আর পেনাল্টি একই। ডি-বক্স ছোঁয়া দূরত্বে ফ্রি কিক পেলে প্রতিপক্ষ শিবিরে আতঙ্ক ছড়িয়ে দেন মেসি।রোববারের ম্যাচে ২২তম মিনিটেই স্কোরশিটে নাম লেখাতে পারতেন মেসি।

কার্লোস গ্রেসোর ‘উপহার’ কাজে লাগাতে পারেননি আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। মাঝ মাঠ থেকে ইকুয়েডর মিডফিল্ডারের ব্যাক পাস পেয়ে যান মেসি।তার সামনে ছিলেন কেবল গোলরক্ষক। বাম দিক থেকে দূরের পোস্টে মেসির কোনাকুনি শট নেন মেসি, যা পোস্টের ভেতর দিকে লেগে ফিরে আসে।৪০তম মিনিটে সফল হন মেসি। তার চমৎকার এসিস্টে গোল পান ডি পল। ডি বক্সের বাইরে এসে নিকোলাস গনজালেসকে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন ইকুয়েডর গোলরক্ষক। আলগা বল ধরে মেসি খুঁজে নেন ডি পলকে। মেসির বাড়িয়ে দেওয়া বলে বুলেট গতির শটে বাকিটা সারেন এ মিডফিল্ডার।এর পাঁচ মিনিট পর অসাধারণ এক ফ্রি কিক নেন মেসি। যেখানে গনজালেস মাথা ছোঁয়ালে তা দ্রুত গতিতে ছুটে যায় গোলমুখের দিকে। কিন্তু ঝাঁপিয়ে তা ঠেকান ইকুয়েডর গোলরক্ষক।

৮৪ মিনিটে ফের সফল মেসি। এবার মেসির অস্ত্র লউতারো মার্টিনেজ। লিওর পাস থেকে বল ধরে ইকুয়েডরের জালে বল জড়িয়ে দেন মার্টিনেজ।৯৩ মিনিটে ফুটবলবিশ্ব দেখে মেসির সেই অসাধারণ ফ্রি কিক। শেষ মুহূর্তে হলেও ফুটবলপ্রেমীদের আশা পূরণ করে দেন আর্জেন্টাইন খুদেরাজ।দি মারিয়াকে ডি-বক্স ছোঁয়া দূরত্বে ফাউল করেন হিনকাপে। ফ্রি কিক পায় আর্জেন্টিনা। শুরুতে ইকুয়েডরের ডিফেন্ডারকে হলুদকার্ড দেখালেও রিপ্লে দেখে লালকার্ড দেখান রেফারি।আর ফ্রি কিকে বল জালে পাঠান মেসি। কিছুই করার ছিল না গোলরক্ষকের। চলতি আসরে আর্জেন্টিনা অধিনায়কের একটি চতুর্থ গোল, ফ্রি কিক থেকে দ্বিতীয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.