রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেফতার করায় যা বলল জাতিসংঘ

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেপ্তারের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। সংস্থাটি বলেছে, বিষয়টির দিকে তারা নজর রাখছে। এটি স্পষ্টতই উদ্বেগের বিষয়। মঙ্গলবার (১৮ মে) জাতিসংঘের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশের সাংবাদিককে হয়রানি ও গ্রেপ্তারসংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক এ কথা বলেন।

ব্রিফিংয়ে জাতিসংঘের স্থায়ী সংবাদদাতা মুশফিকুল ফজল আনসারী সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের প্রসঙ্গ উপস্থাপন করলে মহাসচিবের মুখপাত্র বলেন, ‘বাংলাদেশে যে সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাঁকে নিয়ে প্রকাশিত গণমাধ্যমের খবর আমাদের নজরে এসেছে। আমরা নজর রাখছি। এটি স্পষ্টতই উদ্বেগজনক বিষয়।’

ডুজারিক বলেন, ‘বিষয়টিতে আমাদের নজর রয়েছে, বাংলাদেশে একজন সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এটি অবশ্যই উদ্‌বেগের বিষয়। আমাদের অবস্থান পরিষ্কার, কোনো ধরনের হেনস্তা বা শারীরিক হামলার হুমকি ছাড়াই বিশ্বের সর্বত্র সাংবাদিকদের কাজ করতে দিতে হবে। মুক্ত ও স্বাধীনভাবে কাজের পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। সেটা বাংলাদেশ কিংবা পৃথিবীর যেকোনো জায়গাই হোক না কেন। অবশ্যই বাংলাদেশও তার অন্তর্ভুক্ত।’

স্টিফেন ডুজারিক বলেন, ‘মহামারিকালে বিশ্বব্যাপী সাংবাদিকেরা অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ করেছেন। তাঁরা যেখানেই কাজ করুন না কেন, তাঁদের কাজ চালিয়ে যেতে দিতে হবে।করোনাভাইরাস মহামারীর এ সময়টাতে বিশ্বে সাংবাদিকরা যে ভূমিকা রাখছেন তা আমরা সবাই পর্যবেক্ষণ করেছি। তারা যেখানে, যে অবস্থায় কাজ করুক না কেনো তাদের কাজের ক্ষেত্র হতে হবে বাঁধাহীন।’

উল্লেখ্য, প্রসঙ্গত,সোমবার রাতে রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উপসচিব ডা. মো. শিব্বির আহমেদ উসমানী এ মামলা দায়ের করেন। এছাড়া সাংবাদিক রোজিনার বিরুদ্ধে অনুমতি ছাড়া মোবাইল ফোনে সরকারি গুরুত্বপূর্ণ নথির ছবি তোলা এবং আরও কিছু নথি লুকিয়ে রাখার অভিযোগ এনেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.