কোভিড পজিটিভ জানতে পেরেই সন্তানকে রাস্তায় ফেলে পালানোর চেষ্টা বাবার! হুলস্থুল শহরে

করোনা আক্রান্ত জানতে পেরে শকে নিজের দুধের শিশুকে কোলে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে পড়েছিলেন এক বাসিন্দা। তারপর থেকে তাদের আর খোঁজ মিলছিল না। খোঁজ মিলল শুক্রবার সকালে। কলকাতার আরেকপ্রান্তে এলগিন রোডে শিশুটিকে ফেলে পালানোর চেষ্টা করছিলেন বাবা। স্থানীয় কাউন্সিলর অসীম বোসের তৎপরতায় অবশেষে শিশু ফিরল তাঁর মায়ের কোলে।

জানা গিয়েছে, করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে প্রচন্ড শক পান কাঁকুড়গাছির বাসিন্দা অর্নিবাণ মুখোপাধ্যায়। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত অবস্থায় নিজের শিশুপুত্রকে সুরক্ষিত স্থানে পৌঁছনোর জন্য কোলে নিয়ে বেরিয়ে পড়েন। এদিন সকালে এলগিন রোডে বাচ্চাটিকে নিয়ে রাস্তার উপরেই বসেছিলেন অনির্বাণবাবু। ধোপদুরস্ত পোশাক পরা এক ব্যক্তির শিশু কোলে এভাবে রাস্তায় বসে থাকা স্থানীয়দের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। এগিয়ে কথা বলতে গেলে তিনি পথচারীদের শিশুটিকে নিয়ে চলে যাওয়ার কথা বলতে থাকেন। বিষয়টি গোলমেলে বুঝে খবর যায় স্থানীয় কাউন্সিলর অসীম বোসের কাছে। তিনি এসে ব্যক্তির পরিচয় জানতে চাইলে তিনি তা বলতে চাননি উল্টে চিৎকার চেঁচামেচি করতে থাকেন। স্থানীয় বাসিন্দারা ভিড় জমালে তিনি বিরক্তি প্রকাশ করে বলেন, আমি বাড়ির ঠিকানা বলতে পারছি না। সমস্যায় পড়েছি। আপনারা ছবি তুলছেন, খবরের কাগজে ছাপবেন নাকি! অবশেষে শিশু ও ওই ব্যক্তির পরিচয় জানতে ফেসবুক লাইভের সাহায্য নেন অসীমবাবু। পরে ভবানীপুর থানার পুলিশের সহায়তায় খুঁজে পাওয়া যায় তাদের আসল পরিচয়।

এই সন্ধানের মাঝে শিশুটিকে নিজের বাড়ি নিয়ে যান অসীমবাবু। তাঁর স্ত্রী ও তিনি, পরিবারের হাতে বাচ্চাটিকে তুলে দেওয়া পর্যন্ত নিজেদের কাছেই রেখেছিলেন। প্রায় একদিন পর নিজের সন্তানকে ফিরে পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন শিশুর মা। পরিবারের দাবি, সংক্রমণের হাত থেকে নিজের একরত্তি খুদেকে বাঁচাতে মানসিক শকে এমন পদক্ষেপ নেন অনির্বাণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.