1. ataurrahmanlabib2017@gmail.com : News Live : News Live
  2. sawontheboss4@gmail.com : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
October 24, 2021, 7:15 pm
শিরোনাম
দুধের শিশুকে কোলে নিয়ে অডিশনে বিচারকদের মন জিতলেন মা, সারেগামাপার মঞ্চে এই প্রথম মাস্ক পরতে বলায় রাগ, ব্যাংক কর্মীকে দিয়ে নগদ ৫.৮ কোটি টাকা গোনালেন কোটিপতি টিভি পর্দায় আলিঙ্গনের দৃশ্য সম্প্রচার নিষিদ্ধ করল পাকিস্তান মৃত্যু হবে দুপুরে, তাই কাফন পরে কবরে বসেছিলেন ১০৯ বছরের বৃদ্ধ! ঢাকাসহ ৬ বিভাগে বৃষ্টির আভাস ইউটিউব দেখে কবিরাজি করতো তিনি, ফোনে নারীদের অশ্লীল ভিডিও ক্ষেত নিড়ানি, কৃষিকাজ-মাছ চাষে ব্যস্ত নব্বই দশকের জনপ্রিয় নায়ক নাঈম অন্তরঙ্গ মুহূর্তে প্রেমিকের জিহ্বা কেটে নিল প্রেমিকা বন্ধুর মেয়ে সারার সঙ্গে প্রেম করছেন অক্ষয়! কবে থেকে বাড়বে ক্লাসের সংখ্যা, বললেন শিক্ষামন্ত্রী

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যে উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল ফিতর

রিপোর্টার
  • আপডেট টাইম Thursday, May 13, 2021
  • 47 Time View

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে আজ (১৩ মে) পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে। একমাস সিয়াম সাধনার পর মুসলমানদের জন্য মহাআনন্দের দিন এটি।

এর আগে মঙ্গলবার (১১ মে) সৌদি আরবের চাঁদ দেখা কমিটির পূর্বনির্ধারিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওইদিন দেশটির কোথাও শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় বৃহস্পতিবার (১৩ মে) ঈদুল ফিতর উদযাপনের ঘোষণা দেয় সৌদি সরকার।

এদিকে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখেই সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত, ওমান, মিসর, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়াসহ মধ্যপ্রাচ্যের প্রায় সব দেশে পবিত্র রমজান পালন এবং ঈদ উদযাপনসহ ইসলাম ধর্মের সব ধর্মীয় উৎসব ও ইবাদত-বন্দেগি করা হয়ে থাকে। তাই এই দেশগুলোতেও আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হচ্ছে।

ভৌগলিক কারণে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর একদিন পরই সাধারণত বাংলাদেশের আকাশে চাঁদ দেখা যায়। এজন্য সৌদির সঙ্গে মিল রেখে একদিন পরই বাংলাদেশে রমজান পালন ও ঈদ উদযাপন করা হয়।

সে হিসেবে শুক্রবার (১৪ মে) বাংলাদেশে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।তবে মুসলিমরা ধর্মীয় নিয়ম অনুযায়ী চাঁদ দেখা সাপেক্ষে সব ধর্মীয় উৎসব ও ইবাদত করে থাকেন

আরো পড়ুন-তুরস্কের বিখ্যাত ব্লু মসজিদ ভ্রমণ করে ব্রিটিশ তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

তুরস্কের বিখ্যাত ব্লু মসজিদ। সুলতান আহমেদ মসজিদ নামেও তা বেশ পরিচিত। ১৬১৫ সালে নির্মিত অনিন্দ্য সুন্দর মসজিদটি পরিদর্শন করে ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হোন এক ব্রিটিশ তরুণী।

দুই বছর আগে আয়েশা রোজালি নামের ব্রিটিশ তরুণী এ মসজিদ ভ্রমণে আসেন। এরপর থেকে তিনি ইসলাম নিয়ে ব্যাপক পড়াশোনা শুরু করেন। মুসলিম হওয়ার পর নিজেকে ইসলাম প্রচারে নিয়োজিত করেন।

আয়েশা রোজালি আমেরিকার লস এঞ্জেলেসের অধিবাসী। প্রথম জীবনে রোজালি অভিনেত্রী হতে চেয়েছিলেন। অভিনেত্রী হিসেবে প্রশিক্ষণও নেন। দীর্ঘকালের স্বপ্ন ‍পূরণে তিনি মাত্র ১৪ বছর বয়স থেকে অভিনয় শুরু করেন। অভিনয় সংশ্লিষ্ট অনেক কাজই তিনি করেন।

কিন্তু ইসলাম গ্রহণের পর রোজালি পুরোপুরি অভিনয় ছেড়ে দেন। এখন তিনি নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ইসলাম বিষয়ক পোস্ট দিচ্ছেন।

রোজালি জানান, ‘আমি ইসলামগ্রহণে আগ্রহীদের আমি সহায়তা করতে চাই। আমি চাই আরো বেশি মানুষ ইসলামের ছায়াতলে আসুক। তাই অনেক নওমুসলিমের জীবন সংশ্লিষ্ট ঘটনা নিয়ে উপস্থাপন করি।’

নিজের জীবনের গল্প জানিয়ে রোজালি বলেন, ‘মুসলিম হওয়ার আগে আমি কোনো ধর্ম অনুসরণ করতাম না। তবে ছোটবেলা থেকে একজন স্রষ্টা আছেন বলে আমার বিশ্বাস ছিল।

তাছাড়া আমার বাবা-মা ধার্মিক না হওয়ায় ধর্মের প্রতি আমার অনুরাগও ছিল না। তাই ইসলাম গ্রহণের আগে তেমন ধার্মিক লোক আমি দেখিনি।’

তুরস্ক ভ্রমণের কথা জানিয়ে বলেন, ‘তুরস্কে এসে ধর্ম সম্পর্কে জানার আমার কোনো আগ্রহ ছিল না। গুগলে চার্চ করে ব্লু মসজিদের সন্ধান পাই। মনে মনে ভাবি যে এই মসজিদে আমার যাওয়া উচিত।’

ব্লু মসজিদের অপরা সৌন্দর্য্যে রোজালি মুগ্ধ হয়ে পড়েন। নিজের মুগ্ধতার কথা জানিয়ে রোজালি বলেন, ‘এত সুন্দর মসজিদের খোঁজ পেয়ে আমি হতবাক হই।

আগে মুসলিমদের সম্পর্কে আমার ভালো ধারণা ছিল না। কারণ পশ্চিমা মিডিয়ার মাধ্যমে আমি তাঁদের সম্পর্কে জানতাম। মূলত ইসলাম সম্পর্কে সংক্ষিপ্তাকারে আমার ধারণা এমনই ছিল।’

মসজিদ পরিদর্শন করার আগে রোজালি স্থানীয় দোকান থেকে হিজাব কিনেন। সবার কাছে আমি সম্মানিত থাকতে চাই। ‘আমি ভেবেছিলাম, চুল দৃশ্যমান রাখলে মানুষ আমার ওপর রাগ করবে। তাই একটি হিজাব কিনি। যেন কেউ আপত্তি জানাতে না পারে।

মসজিদ ভ্রমণে এসে রোজালি ইসলাম সম্পর্কিত অনেক বিষয় সম্পর্কে জানার সুযোগ পান। কিন্তু এ বিষয়ে তখন তাঁর গভীর জানাশোনা ছিল না। এমনকি অনেক কিছু সঠিকভাবে উচ্চারণও করতে পারতেন না তিনি।

রোজালি জানান, ‘ব্লু মসজিদে প্রবেশ করে একটি তাসবিহ ও জায়নামাজ নিই এবং কিছুক্ষণ তাসবিহ পাঠ করি। প্রায় এক ঘণ্টার মতো আমি তাসবিহ পড়ি। মসজিদের চারপাশ দেখে মুগ্ধ হয়ে পড়ি। মসজিদের ভেতরের সৌন্দর্য্য অবাক করার মতো।

ভেতরে পরিবেশ অত্যন্ত শান্ত ও নীরব। আমার সামনে অনেক মানুষকে একসঙ্গে নামাজ আদায় করতে দেখি। মসজিদের ভেতরের অবিশ্বাস্য মুগ্ধকর দৃশ্য ও নীরব পরিবেশ উপভোগ করতে থাকি। আমাকে দেখে কেউ আওয়াজ করছেন না দেখে খুবই অবাক হই।’

মসজিদ ছেড়ে হোটেলে যাওয়ার পথে রোজালি পবিত্র কোরআনের কপি খোঁজছিলেন। রোজালি মনে মনে ভাবতে থাকেন। এক কপি কোরআন সংগ্রহ করে পড়ার দৃঢ় ইচ্ছা তৈরি হয়। ইচ্ছামাফিক তিনি কোরআনের একটি ইংরেজি অনুবাদ সংগ্রহ করেন এবং হোটেলের রুমে বসে তা পড়া শুরু করেন।

রোজালি যুক্তরাজ্যের ফিরে আসার পরও কোরআন পাঠ অব্যাহত রাখার সংকল্প করেন। তখন কোরআনের অনুবাদ পড়ে শেষ করাই তাঁর প্রধান ইচ্ছা।

রোজালি বলেন, ‘কয়েক মাসে আমি কোরআনের অনুবাদ পড়ে শেষ করি। এ সময়ে আমি ইসলাম সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারি। তাছাড়া অনেক ইসলাম বিশেষজ্ঞের লেকচারও শুনতে থাকি। কয়েক মাস পর আমি কালেমা পাঠ করি। আমি মুসলিম হিসেবে জীবন যাপন শুরু করি। আলহামদুলিল্লাহ।’

রোজালির বদলে যাওয়া জীবন : ইসলাম গ্রহণের পর রোজালির পুরো জীবন বদলে যায়। ইসলামের ব্যাপারে তাঁর মা খুবই উদ্বেগ প্রকাশ করে। তাই ইন্টারনেটে ইসলাম ও মুসলিমদের সম্পর্কে খোঁজ শুরু করে। তাই রোজালি আরো ভালো করে ইসলাম সম্পর্কে জানার চেষ্টা করেন। ইসলামের সৌন্দ্যর্য ও শান্তিপূর্ণ অবস্থানের কথা জানতে পারেন। তখন তাঁর মনে হয় যে ব্যক্তির চারিত্রিক সৌন্দর্য্য ইসলামের দাওয়াতের অন্যতম মাধ্যম।

রোজালি বলেন, ‘ব্যক্তির চারিত্রিক সৌন্দর্য্য মানুষকে ধর্মের প্রতি আহ্বানের উত্তম পন্থা। কারণ এর মাধ্যমে আমার মায়ের কাছে ইসলামে সৌন্দর্য্য তুলে ধরতে পারব। মায়ের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণের মাধ্যমে তাঁর ঘনিষ্ঠ হতে পারব। আর ইসলাম ধর্মে সুন্দর ব্যবহারের গুরুত্ব অত্যাধিক। বাবা-মায়ের সঙ্গে সদ্বাচার করা ও তাঁদের দেখাশোনা করা আমাদের সবার দায়িত্ব।’

রোজালি জানান, ‘তুরস্কে ভ্রমণ আমার ইসলাম গ্রহণের অন্যতম একটি কারণ। এখানে এসে আমি অনেক ভালো ও উত্তম চরিত্রের মুসলিমদের দেখতে পাই। মূলত তাঁদের দেখেই আমি তাঁদের মতো হতে চেয়েছি। মুসলিম হয়ে আমি অনেক সুন্দর জীবন যাপন শুরু করি। যেন আমি পুনরায় জন্মলাভ করেছি। নিজের জীবনকে গুছিয়ে পাপমুক্ত করার সুযোগ পাই।

সুলতান আহমেদ মসজিদ প্রাঙ্গণে দাঁড়িয়ে রোজিলা বলেন, ‘এ জায়গাটি আমার সবচেয়ে প্রিয় স্থান। এখানে আমি ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে জানতে পারি। এটিই আমার ভ্রমণ করা প্রথম মুসলিম দেশ। আমার স্বামীকে নিয়ে আবার আমি এখানে ভ্রমণে আসি। কারণ তুরস্কের ইস্তাম্বুল নগরীর সুন্দরতম স্থানটি আমার প্রিয় স্থান। আমি তাঁকে এটি দেখাতে চাই।’

সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এছাড়া আরো সংবাদ
2020সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | নিউজলাইভ 24.কম সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন
উন্নয়নেঃ সাইট পুল