হেফাজত নেতাদের বিরুদ্ধে এজাহার: ফেসবুক লিংক পাঠানো হচ্ছে সিআইডিতে

মাওলানা সাজিদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মুফতি মুবারক উল্লাহ

হেফাজতে ইসলামের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কমিটির সভাপতি মাওলানা সাজিদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মুফতি মুবারক উল্লাহর বিরুদ্ধে দেওয়া এজাহারটি এখনও মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করেনি পুলিশ। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা নেওয়ার জন্য শনিবার (১ মে) সন্ধ্যায় তাদের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় এজাহার জমা দেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের সংসদ সদস্য র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

এজাহারে উল্লেখিত ফেসবুক লিংকগুলো পরীক্ষা করে দেখার জন্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কাছে পাঠানো হচ্ছে।

গুগল নিউজ-এ ঢাকা পোস্টের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাহজাহান জানান, ফেসবুকের যে লিংকগুলো দেওয়া হয়েছে- সেগুলোতে রাষ্ট্রবিরোধী এবং উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরির পোস্ট দেওয়া হয়েছিল কি না সেটি পরীক্ষা করে দেখার জন্য ঢাকায় সিআইডির কাছে চিঠি পাঠানো হচ্ছে। সিআইডির রিপোর্টের পর এ বিষয়ে পরবর্তী আইনগত নেওয়া হবে।

সাজিদুর রহমান ও মুবারক উল্লাহসহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দেড়শজনকে আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা নেওয়ার জন্য সংসদ সদস্য মোকতাদির চৌধুরীর পক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক আবদুল জব্বার মামুন এজাহারটি থানায় জমা দেন।

এজাহারে বলা হয়, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে গত ২৬ মার্চ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নারকীয় তাণ্ডব চালায় হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা। তারা সরকারকে উৎখাতের ষড়যন্ত্র ও পরিকল্পনার অংশ হিসেবে আগ্নেয়াস্ত্র এবং গান পাউডারসহ বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ ব্যবহার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভয়াবহ ক্ষতিসাধন করে।

এজাহারে আরও বলা হয়, সাজিদুর রহমান ও মুবারক উল্লাহসহ অন্যান্য আসামিদের নির্দেশে বিভিন্ন ফেসবুক পেজ, আইডি ও নিউজ পোর্টালে সাইবার সন্ত্রাস সংগঠিত করে রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক, বিদ্বেষ ও ঘৃণামূলক স্ট্যাটাস দিয়ে জনসাধারণের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি করা হয়। এর মাধ্যমে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ব্যাপক অবনতি ঘটে।

উল্লেখ্য, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধীতা করে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালায় হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থকরা। এসব ঘটনায় মোট ৫৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। রোববার (২ মে) সকাল পর্যন্ত ৪০৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.