Breaking News

৭ বছরের ছোট ছেলে দ্বারা অন্তঃসত্ত্বা হন অভিনেত্রী অর্চনা

মাত্র ১০ সেকেন্ডের রোলে অভিনয় করে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। তার পর অভিনয় প্রতিভার জোরে জায়গা করে নিয়েছেন বলিউডের প্রথম সারির কুশীলবদের মধ্যে। তিনি অর্চনা পূরন সিং। সিনেমায় ডনের বান্ধবী, খলনায়িকা, আইটেম নাম্বারের শিল্পী থেকে শুরু করে টেলিভিশন মেগার ‘লাফটার কুইন’।

সব ভূমিকাতেই নিজের দক্ষতার ছাপ রেখেছেন তিনি।১৯৬২ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর দেহরাদূনে তাঁর জন্ম হয়। তাঁর বাবা ছিলেন আইনজীবী। দিল্লির লেডি শ্রীরাম কলেজে পড়ার সময়েই তিনি ঠিক করে ফেলেন মডেলিং করবেন। মডেলিং করতে করতেই সিনেমায় এক ঝলক উপস্থিতির সুযোগ। ১৯৮২ সালে মুক্তি

পেয়েছিল ‘নিকাহ’ সিনেমা। এই ছবিতে একটি গানের দৃশ্যে দশ সেকেন্ডের জন্য সেলসগার্লের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল তাঁকে। বিজ্ঞাপনে কাজ করার সময়েই জালাল আগার সঙ্গে আলাপ হয় অর্চনার। পরে জালাল আগার সূত্রে তাঁর পরিচয় ঘটে পঙ্কজ পরাশরের সঙ্গে।

অর্চনা জীবনের প্রথম ছবি ‘জালওয়া’য় নায়ক ছিলেন নাসিরুদ্দিন শাহ। কিন্তু এই ছবির পরেও অর্চনা ইন্ডাস্ট্রিতে প্রত্যাশিত সুযোগ পাননি। মূলত বি বা সি গ্রেড সিনেমাতেই দেখা যাচ্ছিল তাঁকে। ক্যারিয়ার বাঁচাতে তিনি ঠিক করেন সাহসী

ভূমিকায় অভিনয় করলে, করবেন বড় ব্যানারেই। ক্যারিয়ার শুরুর আগেই জীবনে বড় আঘাত পান অর্চনা। ভেঙে যায় তাঁর বিবাহিত জীবন। সেই সম্পর্ক এতটাই তিক্ত হয়ে পড়েছিল যে, তিনি পুরুষদের উপর থেকে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছিলেন।

পরে যখন তাঁর জীবনে পরমীত সেঠী আসেন, তাঁর প্রস্তাবে ‘হ্যাঁ’ বলতে অনেক সময় নিয়েছিলেন অর্চনা। প্রেমের প্রস্তাবে রাজি হলেও অর্চনা বিয়ে করতে চাননি। তিনি এবং পরমীত লিভ ইন করতেন। সে সময়ে তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে বহু চর্চা হয়েছিল।

তা ছাড়া তাঁর এবং পরমীতের বয়সের ব্যবধান ছিল সাত বছর। সেটাও ছিল বলিউডি গসিপের অন্যতম আকর্ষণ। ডিভোর্সি এবং সাত বছরের বড় অর্চনার সঙ্গে ছেলের সম্পর্কে সায় ছিল না পরমীতের বাবা মায়ের। কিন্তু তা সত্ত্বেও প্রেয়সীর হাত ছাড়েননি পরমীত।

Check Also

ভালোবাসা জন্ম হয় ভালো লাগা থেকে

প্রফেসর মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম আমি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ফরেস্ট্রী ও বোটানিতে ভর্তির সুযোগ পেয়েও ভর্তি হতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *