Breaking News

মামুনুলের বিরুদ্ধে ঝর্ণার মামলা

বিয়ের প্রলোভন এবং অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে দুই বছর ধরে বিভিন্ন হোটেল-রিসোর্টে নিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করার অভিযোগে হেফাজত নেতা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তার কথিত দ্বিতীয় স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্ণা। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করেন তিনি।

গত ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে একটি রিসোর্টে এক নারীর সাথে ধরা পড়েন হেফাজত নেতা মামুনুল হক। প্রাথমিকভাবে সেই নারীকে দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে দাবি করলেও পরবর্তীতে নানাভাবে প্রশ্ন ওঠে এর সত্যতা নিয়ে।

অবশেষে মামুনুল হকের কথিত সেই দ্বিতীয় স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্ণা ঘটনাস্থল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক তৈরির মামলা করেছেন মামুনুলের বিরুদ্ধে। মামলার এজাহারে বলা হয়, ২০১৮ সালে বিবাহ বিচ্ছেদের পর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় দুই বছর ধরে ঝর্ণার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে আসছে মামুনুল।

স্বামী শহীদুল ইসলামের সঙ্গে সংসার ভাঙার পেছনে মামুনুলেরই ভূমিকা ছিলো বলে উল্লেখ করেন ঝর্ণা। তিনি বলেন, ২০০৫ সালে মামুনুলের সঙ্গে তার পরিবারের পরিচয়ের আগ পর্যন্ত তাদের সংসার ভালোভাবেই চলছিলো। মামুনুলের সঙ্গে পারিবারিক ঘনিষ্ঠতাই স্বামী শহীদুলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ার কারণ, অবশেষে ২০১৮ সালে বিচ্ছেদ।

বিয়ের পর অসহায় হয়ে পড়লে তাকে সাহায্য নাম করে ঢাকা নিয়ে এসে নিজের মনের ইচ্ছে পূরণ করে মামুনুল। ঝর্ণাকে বিয়ের কথা দিলেও কার্যত তা পূরণে মামুনুল নানা অজুহাতের আশ্রয় নিতো বলে অভিযোগ করেন তিনি।

৩ এপ্রিলের ঘটনার পর মামুনুল তার পরিচিত একজনের বাসায় থাকার কথা বলে নিয়ে তাকে সেখানে আটকে রাখে বলে অভিযোগ করে ঝর্ণা। পরে বড় ছেলের সাথে যোগাযোগ করলে ২৭ এপ্রিল ডিবি পুলিশ তাকে উদ্ধার করে বলে জানিয়েছে জান্নাত আরা ঝর্ণা।

Check Also

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় যেভাবে হবে মানবণ্টন

এ বছর এসএসসি ও এইচএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে তিনটি বিষয়ে প্রত্যেক পত্রে ৩২ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *