বিশ্বজুড়ে খাদ্যের দাম ৭ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [৩] মার্চে টানা দশম মাসের মতো এই ইল্লম্ফন দেখা গেছে। ২০১৪ সালের জুনের পর খাবারের দাম এতোটা কখনই বাড়েনি। জাতিসংঘের খাদ্য সংস্থা এই তথ্য জানিয়েছে। আল জাজিরা

[৪] ফাও এর খাদ্য মূল্য সূচক প্রতিমাসে আপডেট করা হয়। শষ্য, তেলবীজ, দুগ্ধজাত পণ্য, মাংস এবং চিনির দরের এই সূচকের পয়েন্ট মার্চে ছিলো ১১৮.৫। ফেব্রæয়ারিতে এটি ছিলো ১১৬.১। ফাও বলছে ২০২০ সালে সারা বিশ্বে শষ্যের রেকর্ড ফলন হয়েছে। ২০২১ সালেও বাম্পার ফলন হবে এবং তা আগের বছরের রেকর্ডকেও ভেঙে ফেলতে পারে।

[৫] ফাওয়ের শষ্য মূল্য সূচক ১.৭ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। টানা ৮ মাস পর শষ্যের দর কমলো। তবে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় খাদ্যশষ্যের দর সাড়ে ২৬ শতাংশ বেশি। গুরুত্বপূর্ণ শষ্যের মধ্যে গমের রপ্তানি মূল্য সবচেয়ে বেশি কমেছে। ফেব্রæয়ারির তুলনায় দাম কমেছে ২.৪ শতাংশ।

[১] বন্দুক দিয়ে হেফাজতের আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না, হেলমেট লীগের বিচার দাবি ≣ লাল চা নাকি দুধ চা ≣ [১] জাতিসংঘের সামনে যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রলীগের মানববন্ধন

[৬] উদ্ভিদজাত তেলের দর ৮ শতাংশ বেড়েছে। এটি ২০১১ সালের জুনের পর সর্বোচ্চ দর। সবচেয়ে বেশি দাম বেড়েছে পাম, সয়া, রেপ আর সূর্যমুখী তেলের।
[৭] টানা ১০ মাসের মতো বেড়েছে দুগ্ধজাত পণ্যের দাম। ফ্রেবুয়ারির পর দাম বেড়েছে ৩.৮ শতাংশ। দুধের দাম সর্বাধিক এশিয়ায়।

[৮] মাংসের দাম বেড়েছে ২.৩ শতাংশ।
[৯] চিনির দাম ৪ শতাংশ কমেছে বিগত মাসের তুলনায়। তবে এখনও তা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩০ শতাংশ বেশি।
[১০] ফাও জানায়, ২০২০ সালে ২.৭৬৫ বিলিয়ন টন খাদ্যশষ্য উৎপাদিত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.