ধর্ষণের জন্য নারীর পোশাককে দায়ী করে তোপের মুখে ইমরান খান

ইমরান খান। ফাইল ছবি

ধর্ষণ খুব বেড়ে যাওয়ার জন্য নারীদের পোশাককে দায়ী করে তোপের মুখে পড়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সমালোচকরা বলছেন, এমন মন্তব্য ‘বিস্ময়কর মূর্খতা’র নামান্তর। টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত এক সাক্ষাত্কারে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করা ইমরান খান বলেন, কোনো সমাজে অশ্লীলতা বাড়তে থাকলে পরিণামে ধর্ষণও বাড়ে।

একসময় ব্রিটেনে ‘প্লেবয়’-এর জীবন কাটানো সাবেক ক্রিকেটার মনে করেন, পাকিস্তানের সমাজে ধর্ষণের ঘটনা খুব তাড়াতাড়িই বেড়েছে। ইমরান খানের মতে, পুরুষদের সংযত রাখতে নারীদের উচিত খোলামেলা পোশাক না পরা। নারীদের শরীর ঢেকে চলার উপদেশ দিয়ে তিনি এ কথাও মনে করিয়ে দেন যে, পর্দা ব্যাপারটির মূল কথাই হলো প্রলোভন এড়ানো আর তা এড়ানোর মতো ইচ্ছাশক্তি সবার থাকে না।

ইমরানের এই মন্তব্যকে ‘তথ্যগতভাবে ভুল, অসংবেদনশীল এবং বিপজ্জনক’ আখ্যায়িত করে এখন পাকিস্তানে চলছে অনলাইনে স্বাক্ষর সংগ্রহের অভিযান।
স্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযানের আয়োজকরা মনে করেন, একজন প্রধানমন্ত্রীর এমন মন্তব্য ধর্ষক এবং ধর্ষকবান্ধব ব্যবস্থাকে শক্তি জোগাবে। পাকিস্তানের মানবাধিকার কমিশনও প্রধানমন্ত্রীর এমন মন্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে দেওয়া বিবৃতিতে বলেছে, এর ফলে ধর্ষক, নিপীড়কদের রেহাই দিয়ে শিশু থেকে বৃদ্ধা পর্যন্ত ধর্ষণ, নিপীড়নের শিকার সব নারীর ঘাড়ে দোষ চাপানো হলো।

সূত্র: ডয়চে ভেলে

Leave a Reply

Your email address will not be published.