1. ataurrahmanlabib2017@gmail.com : News Live : News Live
  2. sawontheboss4@gmail.com : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
January 24, 2022, 3:51 am

তিন ধরনের নামাজ কবুল হয় না

রিপোর্টার
  • আপডেট টাইম Thursday, April 8, 2021
  • 90 Time View

ইসলাম ডেস্ক: ইসলামের পাঁচ স্তম্ভ হলো- কালেমা, নামাজ, রোজা, হজ ও জাকাত। এ পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে নামাজ অন্যতম। আমরা জানি, নামাজ বেহেশতের চাবি। প্রতিদিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করা প্রতিটি মুসলমানের জন্য অত্যাবশ্যকীয় ফরজ কাজ। তবে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজই হতে হবে সহিহ-শুদ্ধ। নামাজ পড়তে হবে পবিত্র কোরআন ও সুন্নাহর নির্দেশিত পন্থায়। কেউ যদি মনগড়াভাবে নামাজ আদায় করেন, সেই নামাজ কোনোভাবেই আদায় হবে না। নামাজ যেমন বেহেশতের চাবি, অর্থাৎ নামাজ ছাড়া বেহেশতে যাওয়া যাবে না, তেমনি নামাজই কোনো কোনো ব্যক্তিকে জাহান্নামের দিকে ধাবিত করতে পারে। বার্তা২৪

কোনো কোনো ব্যক্তি কি কারণে নিয়মিত নামাজ আদায় করার পরও জান্নাতে যেতে পারবেন না তা নিচে উপস্থাপন করা হলো-

১. কখনও কখনও দেখা যায়, নামাজের ওয়াক্ত হয়ে গেলেও কেউ কেউ অলসতা করে সময়মতো নামাজ আদায় করেন না। অনেক সময় তারা বলে থাকেন, কাজা নামাজ আদায় করবেন। অলসতা করে যারা সময়মতো নামাজ আদায় করেন না, তাদের নামাজ কবুল হবে না। অলসতা করে নামাজ আদায় না করার শাস্তি ওই ব্যক্তিকে পরকালে ভোগ করতেই হবে। এ ব্যাপারে পবিত্র কোরআন মজিদেও সূরা মাউনের ৪-৫ এ ইরশাদ হয়েছে, ‘অতঃপর দুর্ভোগ ওই সব মুসল্লির জন্য, যারা তাদের নামাজ সম্পর্কে উদাসীন।’

[১] টেকনাফে শক্তিশালী দুই কেজি মাদক আইসসহ আটক এক ≣ স্বাস্থ্যসেবা মানুষের অন্যতম মৌলিক চাহিদা : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ≣ ইরানের সিও-ও-সে-পোল মেরামত করা হচ্ছে
এ আয়াতের ব্যাখ্যায় প্রখ্যাত ইসলামি চিন্তাবিদ ও তাফসিরবিদরা উল্লেখ করেন, ‘যারা নামাজ থেকে উদাসীন ও খেল-তামাশায় ব্যস্ত থাকেন, রুকু-সিজদা, ওঠা-বসা যথাযথভাবে করেন না; তাদের নামাজ আদায় হবে না। যারা নামাজের কেরাত, দোয়া ও তাসবিহ যথাযথভাবে পাঠ করেন না। এ ছাড়া কোনো কিছুর অর্থ বোঝেনই না বা বোঝার চেষ্টাও করেন না, মসজিদে আজান হওয়ার পরও যারা অলসতায় সময়মতো নামাজ আদায় করেন না এবং নামাজে দাঁড়িয়ে নামাজ নিয়ে অমনোযোগী থাকেন তাদের জন্য কঠিন শাস্তি অপেক্ষা করছে।

২. আমাদের সমাজে কিছু মানুষ আছেন যারা মানুষকে দেখানোর জন্য নামাজ পড়েন। এ ব্যাপারে পবিত্র কোরআনে উল্লেখ রয়েছে, ‘নিশ্চয়ই মুনাফিকরা আল্লাহকে ধোঁকা দেয়। যখন ওরা নামাজে দাঁড়ায়, তখন অলসভাবে দাঁড়ায় লোকদেখানোর উদ্দেশ্যে। আর তারা আল্লাহকে অল্পই স্মরণ করে।’ -সূরা নিসা: ১৪২

মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন বলেন, ‘আমি অংশীবাদিতা (শিরক) থেকে সব অংশীদারের তুলনায় বেশি মুখাপেক্ষীহীন। যে ব্যক্তি কোনো আমল করে এবং তাতে অন্যকে আমার সঙ্গে শরিক করে, আমি তাকে ও তার আমলকে বর্জন করি।’ -মুসলিম: ২৯৮৫

৩. যারা একেবারে দায়সারাভাবে নামাজ আদায় করেন অথবা নামাজের প্রয়োজনীয় বিধি-বিধানগুলো যথাযথভাবে পালন করেন না, তাদের নামাজ আদায় হবে না। এ ব্যাপারে হজরত আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, ‘একদিন রাসূলুল্লাহ (সা.) মসজিদে প্রবেশ করেন। তখন জনৈক ব্যক্তি মসজিদে প্রবেশ করে দায়সারাভাবে নামাজ আদায় করেন। নামাজ শেষ করে তিনি হজরত রাসূলুল্লাহকে (সা.) সালাম দিলো। হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) সালামের জবাব দিয়ে বলেন, ‘তুমি যাও এবং পুনরায় নামাজ আদায় করো। কেননা, তুমি যথাযথভাবে নামাজ আদায় করোনি।’ এভাবে হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর কথায় ওই লোকটি পরপর তিনবার নামাজ আদায় করলেন। হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) লোকটিকে তিনবারই ফিরিয়ে দিলেন।

তখন লোকটি বলল, হে আল্লাহর রাসূল! এর চেয়ে সুন্দরভাবে আমি নামাজ আদায় করতে জানি না। অতএব আমাকে নামাজ শিখিয়ে দিন! লোকটির মুখে এ কথা শুনার পর হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘যখন তুমি নামাজে দাঁড়াবে তখন তাকবির দেবে। তারপর পবিত্র কোরআন থেকে যা পাঠ করা তোমার কাছে সহজ মনে হয়, তা পাঠ করবে।’

তারপর ধীরস্থিরভাবে রুকু করবে। অতঃপর সোজা হয়ে দাঁড়াবে। তারপর ধীরস্থিরভাবে সিজদা করবে। অতঃপর মাথা উঠিয়ে সোজা হয়ে বসবে।’ -সহিহ বোখারি: ৭৫৭

এ ব্যাপারে হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘মানুষের মধ্যে সেই ব্যক্তি সর্বাপেক্ষা বড় চোর যে ব্যক্তি তার নামাজ চুরি করে।’ সাহাবিরা জিজ্ঞেস করলেন, ‘হে আল্লাহর রাসূল সে কিভাবে নামাজ চুরি করে?’ সাহাবিদের এ প্রশ্নের জবাবে হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘সে নামাজে রুকু ও সিজদা পূর্ণ করে না।’ -মুসনাদে আহমাদ: ২২৬৯৫

আসুন, আমরা সবাই পবিত্র কোরআন-সুন্নাহর নির্দেশিত পন্থায় নামাজ আদায় করি।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এছাড়া আরো সংবাদ
2020সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | নিউজলাইভ 24.কম সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন
উন্নয়নেঃ সাইট পুল