‘শিশু বক্তা’ মাওলানা রফিকুল ইসলাম নেত্রকোনাকে র‍্যাব পরিচয়ে তুলে নেয়ার অভিযোগ!

ডেস্ক রিপোর্ট : আজ বুধবার (০৭ এপ্রিল) রাত ৩টায় ‘শিশু বক্তা’ মাওলানা রফিকুল ইসলাম নেত্রকোনাকে তার নিজ বাসা থেকে র‍্যাব পরিচয়ে তুলে নিয়ে গেছে। তার ব্যক্তিগত সহকারীর সূত্র দিয়ে অনেকেই সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এ খবর পোস্ট করে যাচ্ছে।

মাওলানা রফিকুল ইসলামের সর্বশেষ পোস্টে তিনি লিখেন, আমাকে গুম করার চেষ্টা চলছে,
জুবায়ের বিন আরমান লিখেন,

রফিকুল ইসলাম মাদানী নিখুজ! নিখুজ হওয়ার আগের ভিডিও দেখলাম!
তিনি যে ভাষায় কথা বলেছেন, তাতে নিশ্চিত তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে!
কয়দিন আগে মিছিল থেকে গ্রেফতার হন রফিকুল! তারপর সসম্মানে (তার কথা) আবার ছেড়ে দেওয়া হয় তাকে!

নিশ্চয়ই তার নিখুজ হওয়া দুঃখজনক। তবে বাকি বক্তা বা সেলিব্রিটি ভাইদের কাছে অনুরোধ করবো! কথা বলুন কুটনৈতিক ভাষায়! তীব্র ঘৃণা প্রকাশ করুন আত্মরক্ষা করে।

জানি অনেকেই সবক নিয়ে হাজির হবেন, এ মুহুর্তে এসব কেন? ভাই, নিজেকে একজন সরকার দলীয় ভাবুন এক মিনিটের জন্যে! অতপর রফিকুল ইসলামের কথাগুলো শুনুন। কথার প্রতিটি শব্দ থেকে যেনো এটাই বেড়িয়ে আসে “এই শালা শুয়োরের বাচ্চারা এখনো কেন আমায় গ্রেফতার করিস না?”

নিজের উপর দয়া করুন৷ নেতা ও রাষ্ট্রের সম্পর্ক যতই খারাপ হবে, ততই অধীনস্থরা অনিরাপদ হবে। দেশ হুমকিতে পড়বে! সত্যিই কেউ যদি আপনাকে সম্মান দেয় (আপনাদের কথায় যা বুঝায়) , তবে সেটাকে যথাযথ কাজে লাগান! অন্তত কারো চামড়া কেটে মরিচ ও লবন লাগানো কথা পরিহার করে তীব্র প্রতিবাদ করুন। যৌক্তিক আলোচনা দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব ফেলে।

এতো অত্যাচারের পরেও জামায়াতের একজন নেতার মুখেও শুনি নি আমাদের মতো এতো কঠোর ভাষা! বলতে হয়, তাদের রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও ধৈর্য রয়েছে! অবশ্য কর্মীরা বেনামে বহু কথা বলে। তারা আমাদেরে দিয়ে খুচিয়ে খুচিয়ে কঠোর কথা বলিয়ে থাকে বলে অনেকের ধারণা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.