ঢাকা-সিলেট, চট্টগ্রাম-ঢাকা মেট্রোর ম্যাচ ড্র

জাতীয় ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে ড্র হয়েছে ঢাকা বিভাগ-সিলেট বিভাগ এবং চট্টগ্রাম বিভাগ ও ঢাকা মেট্রোর মধ্যকার দুটি ম্যাচই। করোনার কারণে তৃতীয় রাউন্ড থেকে স্থগিত করা হয়েছে লিগ।

কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে সিলেট-ঢাকার ম্যাচে ‘ম্যান অব দ্য ম্যাচ’ হয়েছেন শুভাগতহোম চৌধুরী। ব্যাটিংয়ে প্রথম ইনিংসে ১১৪ রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে ২০ রানে অপরাজিত থাকেন এই অলরাউন্ডার। বল হাতে দুই ইনিংসে নেন ৪+২= ৬ উইকেট।

জাকির হাসানের সেঞ্চুরিতে (১৫৯) ভর করে সিলেট প্রথম ইনিংসে ৩৭০ রানে অলআউট হওয়ার পর শুভাগতর সেঞ্চুরিতে ২৮০ রানে থামে ঢাকার ইনিংস। পিছিয়ে পড়ে ৯০ রানে।

দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নেমে ২১৯ রানেই গুটিয়ে যায় সিলেট। আসাদুল্লাহ গালিব ৮২ এবং জাকির হাসান ও তানজিম হাসান সাকিব করেন ৩৩ রান করে।

ঢাকার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩১০ রানের। ৬৪ ওভার ব্যাট করে ঢাকা ৫ উইকেটে ১৪৭ রান তুললে ড্র মেনে নেয় দুই পক্ষ। সাইফ হাসান করেন ৬৪ রান।

অন্যদিকে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মূল মাঠে চট্টগ্রাম বিভাগ ও ঢাকা মেট্রোর ম্যাচটিও ড্র হয়েছে। ম্যাচসেরা হয়েছেন চট্টগ্রামের পিনাক ঘোষ। দ্বিতীয় ইনিংসে দুর্ভাগ্যজনক রানআউটের (৪) কবলে পড়া পিনাক প্রথম ইনিংসে করেছিলেন ১৫৯ রান।

চট্টগ্রাম বিভাগ প্রথম ইনিংসে পিনাকের সেঞ্চুরিতে ভর করে ৮ উইকেটে ৪০২ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছিল। জবাবে ২৬৭ রানেই গুটিয়ে যায় ঢাকা মেট্রো।

দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেটে ২৩৪ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে চট্টগ্রাম। মাহমুদুল হাসান জয় ৭৮ আর সাদিকুর রহমান করেন ৪৭ রান। ৩৯ রান আসে ইয়াসির আলীর ব্যাট থেকে।

ঢাকা মেট্রোর সামনে লক্ষ্য দাঁড়িয়েছিল ৩৭০ রানের। তবে এবার ব্যাটিংয়ে ঘুরে দাঁড়ায় দলটি। ৫০ ওভার খেলে ২ উইকেটে ১৪৮ রান তুললে ড্র মেনে নেয় দুই পক্ষ। জাহিদুজ্জামান ৬১ রানে অপরাজিত থাকেন। আজমীর আহমেদ ৪৭ ও শামসুর রহমান শুভ করেন ২৩ রান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.