Breaking News

ইসরায়েল নির্বাচন : সরকার গঠন করতে পারবেন নেতানিয়াহু?

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু নতুন সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় আসন অর্জনে ব্যর্থ হবেন বলে বুথফেরত জরিপে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) দেশটিতে পার্লামেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হয়।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নেতানিয়াহুর লিকুদ পার্টি ও তার জোট সঙ্গীরা মিলে মোট ১২০ আসনের মধ্যে ৫২ থেকে ৫৩টি আসন পেতে পারেন। কিন্তু নেতানিয়াহুকে তার প্রধানমন্ত্রীর পদ টিকিয়ে রাখতে হলে অন্তত ৬০টি আসন যোগাড় করতে হবে।

এর মানে হলো জোটের বাইরে থাকা ইয়ামিনা পার্টিও যদি নেতানিয়াহুকে সমর্থন দেয় তারপরও তার ক্ষমতায় থাকা শতভাগ নিশ্চিত হয় না। কারণ এই দলটির সাতটি আসনে জয়ের পূর্বাভাস পাওয়া যাচ্ছে। তবে ইয়ামিনা পার্টি শেষ-অব্দি কাকে সমর্থন দেবে তা এখনো পরিষ্কার নয়।

ইয়ামিনা পার্টির প্রধান নেতা নাফতালি বেনেট বলেছেন, ‘আমি কেবল ইসরায়েলের জন্য যা ভালো তাই করব।’ তিনি নেতানিয়াহুকে বলেছেন, ‘আমরা পরের পদক্ষেপের জন্য চূড়ান্ত ফলাফল পর্যন্ত অপেক্ষা করব।’

এদিকে ইসরায়েলের কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিটি জানিয়েছে, করোনাভাইরাস সম্পর্কিত বিধিনিষেধের কারণে বুধবার (২৪ মার্চ) বিকেলের আগে সব ভোট গণনা শেষের আশা করা যাচ্ছে না।

রাজনৈতিক টানাপোড়েনের কারণে এ নিয়ে দেশটিতে মাত্র দুই বছরের মধ্যে চারবার পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো। এর আগে গত ডিসেম্বরে জোট সরকারে ভাঙন ধরে।

সাম্প্রতিক সময়ে দুর্নীতির অভিযোগে নেতানিয়াহুর প্রতি দেশটির সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। নির্বাচনের কয়েকদিন আগে তার জেরুজালেমের বাসভবনের বাইরে এক বিক্ষোভে হাজারো মানুষ অংশ নেয়।

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে দুর্নীতি এবং করোনা মহামারি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকারের ব্যর্থতার অভিযোগে গত বছরের জুলাই থেকেই দেশজুড়ে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ চলছে। একই সঙ্গে দীর্ঘ সময় ধরে চলা কঠোর লকডাউনেরও বিরোধিতা করছে সাধারণ মানুষ।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জেরুজালেমে অবস্থিত প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর সরকারি বাসভবনের বাইরে প্রায় ২০ হাজার মানুষ বিক্ষোভ করেছে। গত কয়েক মাসের মধ্যে এটাই সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ।

নেতানিয়াহু প্রায় ১২ বছর ধরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতা দখল করে রেখেছেন। তিনিই প্রথম কোনো ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী যার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে সাধারণ মানুষ বিক্ষোভ করছে। গত বছর তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে তিনটি অভিযোগ আনা হয়। তবে বরাবরই তিনি সব ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

Check Also

আফগানিস্তানে বুশ মার্কেটের নাম এখন মুজাহিদিন বাজার

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমাদের চলে যাওয়ার পর দেশের বিভিন্ন স্থাপনার নাম বদলে ফেলছে তালেবান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *