বৃ’দ্ধ রেলক’র্মী কে মেরে দাড়ি উপরে ফেলল আ’লীগ নেতা!

কুষ্টিয়ায় শহর আওয়ামী লীগের ১০ নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদ খান রনি (৩৫) ও তার সহযোগীদের বি’রুদ্ধে শা’রীরি’ক নি’র্যাত’নের অ’ভিযোগ ক’রেছেন রেলওয়ের ক’র্মচারী শহীদুল ইসলাম। কুষ্টিয়া মিলপাড়ায় কাজ করার সময় ওয়াহেদ খান রনিসহ বেশ কয়েকজন পূর্ব শ’ত্রুতার জে’র ধ’রে বে’ধড়’ক মা’রধ’র করে রেলওয়ের ক’র্মচারী শহিদুল ইসলামকে।

এতে সে মা’রাত্ম’কভাবে আ’হ’ত হয়। বর্তমানে শহিদুল ইসলাম কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের ১০ নং ওয়ার্ডে চিকি’ৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘ’টনায় শহিদুল ইসলামের ছেলে মাসুদ রানা ওয়াহেদ খান রনি সহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে কুষ্টিয়া মডেল থা’নায় এজা’হার দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জা’না যায়, শুক্রবার( ৫ মা’র্চ) রাত ৮ টার দিকে ওয়াহেদ খান রনি পিতা তাইজাল আলী খান, আনোয়ার হোসেন (৩২), রাজা (৪৫), সোহেল রানা (৩০), নুর আলম (৫২), রুস্তম (৪০), সুজন কানা (৩০), লিটন (৩২) ও রিপন (৩০) সহ অজ্ঞাত ১৫/২০ জন পূর্ব শত্রুতার জে’র হ’ত্যা’র উদ্দেশ্যে দেশীয় অ’স্ত্র নিয়ে শহিদুলকে ঘিরে ফে’লে ।

এ সময় ১ নং বিবাদী এবং ২ নং বিবাদী বুকের উপর উঠে এ’লোপা’থা’ড়ি লা’থি মা’রতে থাকে। এ সময় বাকী বিবাদীগণ শহিদুল ইসলামের ছেলে মাসুদ রানা সহ কয়েকজন এগিয়ে আ’সলে তাদের কেও মা’রধ’র করা হয়। এ বিষয়ে শহিদুল ইসলাম বলেন, রনি আমাকে মা’রধ’র করেছে।

এমনকি আমা’র দাড়ি উপরে ফে’লা হ’য়েছে। আমি এর বিচার চাই। এ বিষয়ে ওয়াহেদ খান রনির সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে কুষ্টিয়া মডেল থা’নার ভারপ্রাপ্ত ক’র্মকর্তা শওকত কবির বলেন, এ বিষয়ে এজাহার পেয়েছি। অবশ্যই আ’ইনানুগ ব্যব’স্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.