এসি বাসে “পাদের” গন্ধে ড্রাইভার সহ ৩০ জন অসু’স্থ

পে’টের স’মস্যা দেখা দিলে বা গ্যাস হলে সাধারনত মানুষ পাদ দিয়ে থাকে। সেই পাদের গন্ধ বাকি মানুষদের জন্যে হতে পারে মা’রাত্মক।গরমকাল বলুন বা গ্রীষ্মকাল ব্যাপারটা একই। শীত কালের থেকে গরম যেন একটু বেশি প্রখর, ইংরাজিতে যাকে বলে রাফ। সূর্যের তেজে শুধু মানুষ নয়, সমস্ত প্রানিকুল একটু ছায়ার আশ্রয় খোঁ’জে। গরম তার তীব্রআ’কার নিলে নাজেহাল অবস্থায় পড়তে হয় সবাইকে, বিশেষ করে সাধারন মানুষদের। সুতরাং বাঁচবার কোন পথ খোলা থাকে না। আবহাওয়ার

তা’রতম্যের কারণে আমাদের শ’রীর থেকে ঘাম নিৎসৃত হয় এবং এই ঘামের স’ঙ্গে নিৎসৃত হয় সোডিয়াম ক্লোরাইড, যা আমাদের শ’রীরের জন্য খুবই গু’রুত্ব পূর্ণ। গরমের দিনে এবং ক’ঠিন পরিশ্রমে শ’রীর থেকে প্রায় তিন-চার লিটার ঘাম নিৎসৃত হয়, সে স’ঙ্গে লবণ বেরিয়ে যায়। ফলে শ’রীর জলহীন হয়ে পড়ে। গত ২৫ আগস্ট চট্টগ্রামের এক এসি বাসে কোনও এক প্যাসেঞ্জার এর ছাড়া পাদের গন্ধে বাসের ড্রাইভার সহ ৩০ জন যাত্রী অসু’স্থ হয়ে প’ড়েন। পু’লিশ এসে বাকি অক্ষ’ত

যাত্রীদের জিজ্ঞেসাবাদ ক’রেছেন। কে এই এর আগেও অসময়ে পাদ দেবার ফলে এক চো’র পু’লিশের হাতে ধ’রা পরে যায়। এভাবেই বিভিন্ন অসময়ে পাদ দেবার ফলে বিভিন্ন মানুষদের ফল ভুগতে হয়েছে।। পাদ আ’সলে এমন একটি জিনিস যা আম’রা

প্রত্যেকেই দিয়ে থাকি। কেউ তা স্বী’কার করে আবার কেউ করে না। একটা হিসাব করে দেখা গেছে, মানুষ গড়ে দিনে ১৪ বার করে পাদ দেয়। আর সারা জীবনে ৪ লক্ষ ২ হাজার বার। এই পাদ নিয়ে রয়েছে অনেক তথ্য যার কিছুটা মজার, আবার কিছুটা

জে’নে রাখার মতো।আপনার কাছে পোষ্ট টি কেমন লে’গেছে সংক্ষেপে কমেন্টেস করে জা’নাবেন ৷ T=(Thanks) V= (Very good) E= (Excellent) আপনাদের কমেন্ট দেখলে আরো ভালো ভালো পোষ্ট দিতে উৎসাহ পাই

Leave a Reply

Your email address will not be published.