রিকশাওয়ালাকে স্যালুট দিলেন পুলিশ, ভিডিও ভাইরাল

কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ঘুরে বেড়াচ্ছে। সেখানে দেখা যায় একজন পুলিশ সদস্য ষাটোর্ধ এক রিকশাওয়ালাকে স্যালুট দিয়ে কিছুক্ষণ কথা বললেন। তারপর পকেট থেকে টাকা বের করে হাতে গু’ঁজে দেন। ঘটনাটি নরসিংদী সদরের ভেলানগর স্টেডিয়ামের সামনে। কি ঘটেছিল সেদিন? বিস্তারিত জানতে কাজ করে সময় সংবাদ। ঘটনায় সম্পৃক্ত পুলিশ ও সংশ্লি’ষ্টদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ঘটনাটি শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ‘বিকেলের। রাস্তায় দাঁড়িয়ে ট্রাফিকের দায়িত্ব

পালন করছিলেন নরসিংদী পুলিশ লাইনে ক’র্তব্যরত কনস্টেবল সোহাগ হোসেন (২৮)। তরুণ এই পুলিশের পেছন থেকে ডাক দেন ষাটোর্ধ এক রিকশাওয়ালা। রিকশা ওয়ালার ভাষ্যমতে, কেউ একজন ভাড়া নিয়ে গিয়ে এক ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রেখে পারিশ্রমিক না দিয়েই চলে গেছেন। তিনি ফিরে এসেছেন খালি হাতে। এদিকে খাবার খাওয়ার টাকা নেই তার কাছে। রিকশাওয়ালা বয়স্ক লোকটি ট্রাফিক সোহাগের কাছে ২০ টাকা চান। এক পর্যায়ে বেশ কিছু আলাপের পর সোহাগ টাকা দেন এবং একটি

খাবারে দোকান দেখিয়ে দেন। এই ভিডিও রেকর্ড হয় পাশেই থাকা একটি হার্ডওয়ারের দোকানে সিসিটিভিতে। সেখান থেকে ভিডিও সংগ্রহ করে স্বপন শেখ নামে এক পলিটেকনিক শিক্ষার্থী। পরে সে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড করলে এটি বিভিন্ন গ্রুপ এবং পেইজে ভাইরাল হয়ে যায়। ভিডিও আপ করা শিক্ষার্থী স্বপন শেখের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি এই ঘটনার সরাসরি প্রত্যক্ষদর্শী। সেদিন ‘বিকেলে আসরের নামাজে যাওয়ার সময় পুলিশ সোহাগ ভাইকে এক

রিকশাওয়ালাকে টাকা দিতে দেখি। বি’ষয়টা দেখে অবাক হই। পুলিশের এই ভালো কাজ সকলের কাছে ছড়িয়ে দিতেই আমি ভিডিও আপ করেছিলাম। পুলিশ সদস্য সোহাগ হোসেনের সাথে কথা হয় সময় সংবাদের। নারায়ণগঞ্জ জে’লায় জন্ম নেয়া এই ব্যক্তি পুলিশে যোগ দেন ২০১১ সালের আগস্টে। তিনি নরসিংদী পুলিশ লাইন্স এ দায়িত্ব পালন করে আসছেন গত এক বছর ধরে। কোনো সময় ট্রাফিকের সংকট হলে এক্সট্রা ফোর্স হিসেবে তিনি ট্রাফিকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বলেন, ‘আমা’র কাছে

নাশতা খাবার টাকা চায় রিকশাওয়ালা চাচা। লোকটাকে দেখে আমা’র মায়া লাগে। তারপর কথা বলার সুযোগ দেই। এরপর আমি তাকে টাকা দিয়ে হেল্প করি। তার আগে আমি ওনাকে হাত উঠিয়ে সালাম দেই। এই বয়সেও তিনি নিজের কাজ নিজে করছেন দেখে নিজ থেকে সম্মান দিতে ইচ্ছে হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.