৭ বছরের বাচ্চা একবারে সাবাড় করছে ১৫০টা মিষ্টি, ২ কিলো চালের ভাত

পুনিশোল গ্রামের বনো পাড়ার বাসিন্দা মহম্মদ মোজ্জাফের মল্লিকের সন্তান মো. রেহান মল্লিক। তার বয়স মাত্র সাত বছর। এতদিন বাকি বাচ্চাদের মতোই বেড়ে উঠছিল মো. রেহান। কিন্তু গত ১৫ মাস ধরে বাধে বিপত্তি! এক নিমেষেই সে সাবাড় করে দিচ্ছে দেড় কিলো চালের ভাত, ১৫০ পিস রসগোল্লা, ২০ থেকে ৩০টি রুটি। রেহানের এই খাবার গল্প ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময়’র এক প্রতিবেদনে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়।প্রতিবেদনে বলা হয়, ক্ষুধা লাগলে খাবার না পেলে বাড়ির সদস্যদেরকে মারধর করছে এই শিশু। রেহানের বাবা মোজ্জাফের মল্লিক পেশায় একজন ফেরিওয়ালা। নিজেদের খাবার জোগার করতে গিয়ে রীতিমতো হিমশিম অবস্থা হয় তার। আর সেখানে ছেলে এই বিপুল পরিমাণ খাবার খাওয়ার ফলে চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন তিনি। কীভাবে তার খাবার জোগার করবেন তা ভেবেই পাচ্ছেন না তিনি।

বেহানের বাবার দাবি, ছেলে খুব বেশি খাচ্ছে। প্রচুর খেয়ে নিচ্ছে। আর খাবার না দিলে মারধরও করছে। যা পারছে তাই খেয়ে যাচ্ছে। রুটি খেলে ২০ থেকে ৩০টা খাচ্ছে। মিষ্টি খেলে ১০০ থেকে ১৫০ পিস খেয়ে নিচ্ছে। ভাত একসাথে দেড় থেকে দু’কিলো খাচ্ছে। ছেলের এই খাবারের জোগান আমার পক্ষে দেয়া সম্ভব নয়। আমি দিন মজুরের কাজ করি। প্রায় প্রতিদিনই ১০০০ থেকে ১২০০ টাকার খাবার খেয়ে নিচ্ছে। সেটা আমি যোগান দিতে পারছি না।

তিনি আরও বলেন বাড়িতে কোনো আমন্ত্রিত অতিথি এলে তাদেরও হাতে খাবার নিয়ে আসতে হচ্ছে নয়তো তাদের ওপরে চড়াও হচ্ছে আমার ছেলে।
পুনিশোলের প্রধান রেজাউল হক মণ্ডল বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা সম্প্রতি এই খবরটা জানতে পেরেছি। আমরা তার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেবো। আর তার যাতে ভালো জায়গায় চিকিৎসা হয় সেদিকে আমাদের খেয়াল থাকবে। তার খাবারের যাতে সঠিকভাবে যোগান দেয়া সম্ভব হয় সেই ব্যবস্থা করছি।

Leave a Comment