১৯ লাখ টাকা দালালের পকেটে, ইতালি যাওয়ার আগেই ফিরলেন লাশ হয়ে

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের শ্রীধরপাশা গ্রামের কৃষক তরিকুল ইসলাম সব জমি বিক্রি করেও ছেলের জীবন বাঁচাতে পারেননি। নিজের সর্বস্ব দিয়ে চেষ্টা করার পর অবশেষে তিন মাস পর

লা’শ হয়ে বাড়ি ফিরেছে কৃষকের ছেলে একুয়ান ইসলাম (১৯)। কিন্তু তার ইতালি যাওয়ার কথা ছিল। এ জন্য তরিকুল দালালকে ১৯ লাখ টাকা দেন। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) একুয়ানের মরদেহ গ্রামে পৌঁছলে

হৃদয় বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। স্থানীয় সূত্র জানা গেছে, কৃষক তরিকুল ইসলামের ছেলে একুয়ান গত বছরের মার্চ মাসে গ্রামের দালাল আলী হোসেনের মাধ্যমে চার লাখ টাকায় লিবিয়ায় যায়। সেখানে পৌঁছে দা’লা’ল চ’ক্র

তাকে আ’ট’ক করে অমা’নুষি’ক নি”র্যা’তন চালায়। সেখান থেকে তাকে রক্ষা করতে ১০ লাখ টাকা দেওয়া হয়। পরে আরও পাঁচ লাখ টাকা দিয়ে তাকে ইতালি পাঠানোর চুক্তি হয়।

১৬ জুন, ইকুয়ান অ’বৈ’ধভাবে সমুদ্রপথে ইতালি যাওয়ার পথে মা’রা যান। একুয়ানের বাবা বলেন, ‘পরিবারের সচ্ছলতা আনতে সব জমি বিক্রি করে তিন কিস্তিতে দা’লাল

আলী হোসেনের বাবা আবুল মিয়া ও মা আসমা বেগমকে ১৯ লাখ টাকা দিয়েছি। আমার ছেলেকে নি’র্ম’মভাবে নি”র্যা’তন করে হ”ত্যা করা হয়েছে। আমাদের কাছে প্রমাণ আছে। আবুল ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে মামলা