সা.প ভেবে নবজাতককে ডোবায় ফে.লে দিলেন মা…

নরসিংদীর পলাশে ২৪ দিনের এক নবজাতক সন্তানকে সাপ ভেবে ডোবায় ফেলে দিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক মায়ের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সকালে জেলার পলাশ উপজেলার ডাঙ্গা ইউনিয়নের কেন্দুয়াব গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নবজাতকের নাম ইউসুফ মিয়া। সে কেন্দুয়াব গ্রামের মহসিন মিয়ার ছেলে। ঘটনার পর পুলিশ নিহত ওই নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। একইসঙ্গে নবজাতকের মা তানিয়া বেগমকে (২২) গ্রেফতার করে পুলিশ।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, তানিয়া বেগম গর্ভধারণের পর থেকে পেটে সাপ রয়েছে বলে আতঙ্কে থাকত। পরে গর্ভধারণের সাত মাসের মাথায় আলট্রাসনোগ্রাম করে পুত্র সন্তানের কথা জানে; কিন্তু তারপরও তার সাপ আতঙ্ক কাটেনি।

২৪ দিন আগে একটি হাসপাতালে তানিয়া পুত্র সন্তান জন্ম দেন। জন্মের পর থেকে নিজের সন্তানকে সাপ সাপ বলে আতঙ্কিত থাকেন। সর্বশেষ মঙ্গলবার সকালে একইভাবে আতঙ্কিত হয়ে নিজের নবজাতক সন্তানকে বাড়ির পাশে একটি ডোবায় ফেলে দেয়। পরে বাড়িতে এসে স্বজনদের সাপ ফেলে দিয়ে এসেছে বলে জানায়। এরপর স্বজনরা ডোবা থেকে নবজাতককে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিলে সেখানে ডাক্তার তাকে মৃত বলে জানান।

তানিয়া বেগমের স্বামী মহসিন মিয়া জানায়, গর্ভধারণের পর থেকে হঠাৎ করে তানিয়া তার পেটে সাপ রয়েছে বলে আতঙ্কিত থাকত। পরে ৭ মাসের মাথায় হাসপাতালে আলট্রাসনোগ্রাম করে পুত্র সন্তানের বিষয়টি জানি। গত ২৪ দিন আগে সিজারের মাধ্যমে পুত্র সন্তানের জন্ম দেয় তানিয়া। এরপরও সে নিজের সন্তানকে সাপ সাপ বলে আতঙ্কিত থাকত।

তার মানসিক সমস্যায় অনেকবার ডাক্তারও দেখিয়েছি। ডাক্তার বলেছিল সুস্থ হতে কিছু দিন সময় লাগবে; কিন্তু সে যে এরকম কাজ করবে তা ভাবিনি।পলাশ থানার ওসি মোহাম্মদ ইলিয়াছ জানান, ঘটনার পর নবজাতকটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে তানিয়া বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে।