যে কারণে প্রধানমন্ত্রীকে এফডিসিতে আনতে চান নিপুন

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে অভিনেত্রী নিপুন আক্তারের পক্ষে রায় দিয়েছেন আপিল বিভাগ। সোমবার দুপুরে হাইকোর্টের রায় স্থগিত করে প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন ৩ সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন।আদালতের আদেশের পর সন্ধ্যায় এফডিসিতে উপস্থিত হন নিপুন। শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে গিয়ে সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসেন তিনি।

এর আগে সংবাদ সম্মেলন করে এই অভিনেত্রী বলেন, টাকা দিয়ে ভোট কেনা হয়েছিল। আমাদের কাছে তার বিভিন্ন প্রমাণ আছে। অডিও আছে, ছবি আছে। আমরা সেসব আদালতে পেশ করেছি। সত্যের জয় হয়েছে। এখন আমার মাথা ‘পরিষ্কার হয়েছে’, মন দিয়ে চলচ্চিত্রের জন্য কাজ করতে পারব।

নিপুন আরও বলেন, আজ এখান থেকে বের হয়ে আমার প্রথম কাজ হবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলে তাকে এফডিসিতে নিয়ে আসার জন্য কাজ শুরু করা। আমরা দেখেছি, তিনি নিজে যেসব ক্ষেত্রে পদক্ষেপ নেন, সেসব সমস্যা দূর হয়ে যায়। প্রধানমন্ত্রী এফডিসিতে আসলে আমাদের সব সমস্যা শুনে দ্রুত পদক্ষেপ নিলে চলচ্চিত্রের সমস্যাগুলোও দূর হয়ে যাবে।

এর আগে জায়েদ খানকে শিল্পী সমিতির সম্পাদক ঘোষণা করে রায় দেন হাইকোর্ট। পরবর্তীতে তা স্থগিত ও স্থিতিবস্থা দেন চেম্বার জজ আদালত।তবে জায়েদ খানের আইনজীবী বলেন, এই স্টাটাসকো অনুযায়ী জায়েদ খান আপাতত দায়িত্ব পালন করে যেতে পারবেন। তবে নিপুনের আইনজীবী দাবি করেন, বিষয়টির ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

এছাড়া গত ২৪ ফেব্রুয়ারি অভিনেত্রী নিপুন আক্তারের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা করেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান। পরবর্তীতে নিপুনও জায়েদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনেন।

Leave a Comment