মুস্তাকিনের হার্টে ছিদ্র, বাঁচাতে বাবা-মায়ের আকুতি

ফুটফুটে শিশু মুস্তাকিনের বয়স মাত্র আট মাস। ছোট্ট ছেলেকে নিয়ে বাবা-মা পড়েছেন দুশ্চিন্তায়। জন্মের পর শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় চিকিৎসক জানিয়েছিলেন শিশুটির হার্টে ছিদ্র রয়েছে।

দ্রুত অপারেশন করাতে হবে। কিন্তু টাকার অভাবে আট মাস পেরোলেও সেই অস্ত্রোপচার করাতে পারছেন না দিনমজুর বাবা। হার্টের ছিদ্র নিয়ে যতই দিন যাচ্ছে বাবা-মায়ের শঙ্কা আর উৎকন্ঠাও তত বাড়ছে। মুস্তাকিন আহম্মেদ নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার বাঁশবাড়িয়া গ্রামের মিলন আলী ও জলি বেগম দম্পতির ছেলে।

মুস্তাকিনের বাবা মিলন আলী বলেন, দুই সন্তানের মধ্যে মুস্তাকিন দ্বিতীয়। বড় মেয়ে মিলি খাতুনের বয়স পাঁচ বছর। এ বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় একটি ক্লিনিকে সিজারিয়ানের মাধ্যমে মুস্তাকিনের জন্ম হয়। জন্মের পর থেকেই জটিলতা দেখা দেওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে

ভর্তি করা হয়। পরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তিনি জানতে পারেন তার ছেলের হার্টে ছিদ্র রয়েছে। এর পর থেকে প্রায় দুই লাখ ৬০ হাজার টাকা খরচ করে এ পর্যন্ত ছেলের চিকিৎসা করেছেন। এর জন্য সর্বস্ব বিক্রি করেছেন মিলন। এখন মাত্র ৩ শতাংশ জমিতে দুই ভাই একত্রে বসবাস করেন।

বর্তমানে ঢাকার ল্যাবএইড কার্ডিয়াক হাসপাতালের চিকিৎসকের অধীনে মুস্তাকিনের চিকিৎসা চলছে। অপারেশনসহ তার পুরো চিকিৎসায় প্রায় ৫ থেকে ৬ লাখ টাকার প্রয়োজন। কিন্তু এ অর্থ ব্যয় করার সাধ্য নেই গরিব বাবার। নিরুপায় হয়ে দেশের হৃদয়বান ও বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আবেদন করেছেন শিশুটির বাবা-মা। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা— তার বাবা মিলনের সঞ্চয়ী হিসাব নং ৪৯০২৩০১০১৫০৮৯, সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, বাগাতিপাড়া শাখা, নাটোর।

Leave a Comment