বিভাগজুড়ে মাইকিং শুরু মাঠে কেন্দ্রীয় টিম

সিলেটে বিএনপির গণসমাবেশের আর মাত্র চারদিন বাকি। শনিবার সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে এই গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপি নেতা-কর্মীরা যেকোনো মূল্যে এই সমাবেশ সফল করতে বিভাগজুড়ে গণসংযোগ, প্রচার প্রচারণা ও মাইকিং চালিয়ে যাচ্ছেন। মাঠে কেন্দ্রের একাধিক টিমও কাজ

করছে। তৃণমূলের নেতাকর্মীরাও উজ্জীবিত। গ্রামগঞ্জে চলছে গণসংযোগ ও প্রচারণা। পাড়া-মহল্লায় সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে মাইকিং। নগরীতে বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল শোডাউন করেছে। অপর দিকে বাধা দেওয়ার বিষয়টি কেন্দ্রীয় একাধিক টিম গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। প্রচারণায় বিঘ্ন ঘটছে কিনা তাও তদারকি করছে বিএনপির কেন্দ্রীয় হাইকমান্ড।

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী যুগান্তরকে জানান, কোথাও গণসংযোগ বা প্রচারণায় পুলিশ বাধা দিচ্ছে না। দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে। এগুলোকে আমরা আমলে নিচ্ছি না। এদিকে হবিগঞ্জে বিএনপির তিন নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার ভোররাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ৫ নম্বর গুপায়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান খান, একই ইউনিয়নের সাবেক আহ্বায়ক মো. শাহিন মিয়া ও সহসভাপতি আব্দুল হামিদ।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক জিকে গউছ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘১৯ নভেম্বর সিলেটের গণসমাবেশ মহাসমাবেশে রূপান্তর হবে। সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা মানুষের কাছে পৌঁছাচ্ছি। এই কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করতেই পুলিশ আমাদের তিন নেতাকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে গেছে। এমন অভিযোগের ব্যাপারে সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, আইনশৃঙ্খলার কোনো অবনতি না হলে কাউকে গ্রেফতার করা হচ্ছে না। শতভাগ আইন-কানুন মেনে পুলিশ কাজ করছে। হবিগঞ্জের তিন নেতাকে গ্রেফতারের ব্যাপারে বলেন, আমার জানামতে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ বা মামলা ছাড়া উদ্দেশ্যমূলকভাবে কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। অভিযোগগুলো খতিয়ে না দেখে কিছু বলা যাচ্ছে না।

সিলেট বিভাগীয় গণসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোল্লারগাঁও ইউনিয়নে প্রচারপত্র বিতরণ ও প্রচার মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মামুন হাসান। দক্ষিণ সুরমা উপজেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মকসুদুল করিম নুয়েলের পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দক্ষিণ সুরমা উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক বাবর আহমদ রনি। বিশেষ অতিথির বত্তৃদ্ধতা করেন সিলেট জেলা যুবদলের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোমিনুল ইসলাম মোমিন ও সাধারণ সম্পাদক মকসুদ আহমদ, মহানগর যুবদলের সভাপতি শাহ নেওয়াজ বক্ত তারেক এবং সাধারণ সম্পাদক মির্জা সম্রাট। বক্তব্য রাখেন তোফাজ্জল হোসেন বেলাল, নজরুল ইসলাম, এমদাদুল হক স্বপন, জিএম বাপ্পি, আমিনুল ইসলাম আমিন ও মিয়া মুহাম্মাদ সুহেল।

বিভাগীয় গণসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল সিলেট জেলা ও মহানগর শাখার উদ্যোগে প্রচার মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নগরীর আলিয়া মাদ্রাসা মাঠ থেকে মিছিল শুরু করে বন্দরবাজার কোর্ট পয়েন্ট গিয়ে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল মুকিত তুহিনের সভাপতিত্বে, জেলা ছাত্রদলের মুক্তিযোদ্ধা ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক আজমল হোসেন অপু ও

মহানগর ছাত্রদলের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আশরাফুল আলম মাহির যৌথ পরিচালনায় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা ছাত্র দলের সহ-সভাপতি মাসরুর রাসেল। মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এমদাদ হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে নগরীর ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। নগরীতে বর্ণাঢ্য প্রচার মিছিল করে সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল। মিছিলটি নগরীর রেজিস্টারি মাঠ থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।