বয়সের ছাপ কমিয়ে শরীর চাঙা রাখতে লেবুপানি খান

ভিটামিন সি-র খুব ভালো উৎস হলো লেবু। ভিটামিন সি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। আজ আমরা একজন পুষ্টিবিদের কাছ থেকে লেবুর পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জানব।এনটিভির নিয়মিত স্বাস্থ্যবিষয়ক আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিনের একটি পর্বে লেবুর পুষ্টিগুণ বর্ণনা করেছেন পুষ্টিবিদ তাসনিম আশিক। তিনি বলেন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের অভাবে আমাদের স্কিন ড্যামেজ হয়ে যেতে পারে।

স্কিনে এজের ছাপ পড়ে যেতে পারে এবং স্কিন ড্রাই হয়ে যেতে পারে। কিন্তু লেবুর ভিটামিন সি, অর্থাৎ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট স্কিনকে নরমাল রাখতে সাহায্য করে, বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না, স্কিনকে রাখে গ্লোয়িং। সেইসঙ্গে ট্যান পড়া থেকেও দূরে রাখে ভিটামিন সি। প্রতিদিন সকালে যদি উষ্ণ গরম পানিতে কিছুটা লেবুর রস মিশিয়ে ধীরে ধীরে খাওয়া যায়, অর্থাৎ সকালটা যদি শুরু করা যায় এক গ্লাস লেবুপানি দিয়ে, সে ক্ষেত্রে সারা দিনের ডাইজেস্টিভ সিস্টেম বা হজমশক্তি ভালো থাকবে।

পুষ্টিবিদ তাসনিম আশিক আরও বলেন, লেবুর ভিটামিন সি আমাদের শরীরে যে হরমোনগুলো আছে, সেগুলোকে অ্যাকটিভ রাখতে সাহায্য করে। লেবু ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে রাখে। সাধারণত যাদের হাই ব্লাড প্রেশার, তাদের প্রেশারকে অনেকটা কনট্রোল করে থাকে লেবু বা লেবুপানি। লেবুপানি আমাদের শরীরকে হাইড্রেট রাখতে সাহায্য করে। যেহেতু লেবুতে রয়েছে ভিটামিন সি, সে ক্ষেত্রে আয়রন অ্যাবজর্বশনেও সাহায্য করে থাকে।

পুষ্টিবিদ তাসনিম আশিকের পরামর্শ, লেবুতে রয়েছে সাইট্রিক অ্যাসিড। কিডনি স্টোন প্রতিরোধে সাইট্রিক অ্যাসিড সাহায্য করে। সুতরাং আমরা প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় বা প্রতি বেলার খাবারে একটা করে লেবু রাখতেই পারি। যে কোনও মুহূর্তে আমাদের শরীরে ক্লান্তি আসতে পারে।

ক্লান্তি দূর করার জন্য লেবুপানি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে চিনি ছাড়া পান করতে হবে। লেবুর ভিটামিন সি স্কার্ভি রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে। এ ছাড়া প্রদাহজনিত যে কোনও রোগ, ইনফেকশনের মতো সমস্যাও লেবু দূর করে থাকে। সুতরাং শরীরকে চাঙা রাখতে, হাইড্রেট রাখতে, ভিটামিন সি-র চাহিদা পূরণ করতে লেবু অনায়াসে খেতে পারি।

Leave a Comment