ধরা পড়লেই ব্লেড দিয়ে শরীর কাটে ওরা

ছিনতাইয়ে জড়িত দুই যুবককে রাজধানীর উত্তরা-৭ নম্বর সেক্টর থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা হলো- আক্তার হোসেন ও মো. হুতিক।শুক্রবার ভোরে এ অভিযান চালানো হয়। তারা চলন্ত বাস থেকে যাত্রীর মোবাইল ফোন, ব্যাগ, স্বর্নের চেইন ছোঁ মেরে ছিনিয়ে নেয় বলে ‘কাউয়া’ নামেই বেশি পরিচিত।

উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন সমকালকে বলেন, আক্তার ও হুতিক দুর্ধর্ষ ছিনতাইকারী। এই রুটে চলাচল করা আন্তঃজেলা বাসগুলো থেকে ছিনতাইয়ের বেশিরভাগ ঘটনায় তারা জড়িত। তবে তারা কখনই ধরা পড়ে না। কারণ ধরা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে তারা নিজেদের শরীর কেটে রক্তাক্ত হয়। আবার মল ত্যাগ করে নিজের শরীরে মাখে, অন্যদের দিকেও ছুড়ে দেয়। ফলে ভয়ে কেউ তাদের ধরে না।

এ সুযোগে তারা পালিয়ে যায়।তিনি আরও বলেন, তাদের মধ্যে আক্তার ভাঙারি ব্যবসায়ী। দোকানেই আক্তারের সঙ্গে হুতিকের পরিচয় হয়। এরপর তারা একসঙ্গে ছিনতাই শুরু করে। তাদের মূল টার্গেট আন্তঃজেলা বাস। দ্রুতগামী বাসগুলোর জানালার পাশে বসা যাত্রীর মোবাইল ফোন বা ব্যাগ টান দিয়ে দৌড়ে পালায় তারা।

ওসি জানান, নিজেদের মধ্যে সাংকেতিক শব্দ ব্যবহার করে যোগাযোগ করে তারা। যেমন চেইনকে বলে সুতা, মোবাইল ফোনকে বাঁশি এবং কানের দুলকে ঝুমকা। তাদের একদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

Leave a Comment