https://www.highperformancecpmgate.com/mpd7i4drgw?key=8c9246005c069d2f701e13c70787cd45
https://www.highperformancecpmgate.com/mpd7i4drgw?key=8c9246005c069d2f701e13c70787cd45

তারকারা আর কত গোপন আর মিথ্যাচার করবেন?

প্রায় একইরকম নাটকীয়তা! তবে অপু বিশ্বাসের মতো টিভি লাইভে হঠাৎ প্রকাশ করেননি বুবলী। বরং শাকিব-বুবলীর সম্পর্কের বিষয়ে বিনোদন সাংবাদিকদের ভেতরে আগে থেকেই আলোচনা ছিল। শুধু ছবি বা ভিডিওর প্রমাণ হাতে ছিল না বলে প্রকাশ পায়নি! অবশেষে কয়েক দিনের

নাটকীয়তার অবসান ঘটালেন শাকিব খান ও বুবলী দু’জনই। আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বললেন শাকিব খান ও শবনম বুবলী। বললেন তারা স্বামী-স্ত্রী! শাকিব খান বলেন, ‘শেহজাদ খান বীর, আমার ও বুবলীর সন্তান, আমাদের ছোট্ট রাজপুত্র। শেহজাদের সঙ্গে আমি শুরু থেকেই ছিলাম, আছি এবং আজীবন থাকব। আপনাদের সবার কাছে আমাদের সন্তানের জন্য দোয়া কামনা করছি।’

এদিকে অপু বিশ্বাসের সেই আলোচিত লাইভের পরে শাকিব অপু একসাথে গণমাধ্যমের একটি ফটোশুটে অংশ নিলেও পরবর্তীতে দেখা যায় কিছু দিনের ভেতরেই বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটে। শাকিব খানই ডিভোর্স দেন অপু বিশ্বাসকে। সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে কি-না এমন প্রশ্নে শাকিব বুবলী দু’জনই বলেছেন, ‘সময়ই বলে দেবে।’ এই সময়েও কী তারা ভিন্ন মিথ্যাচার করবেন। কোনটা রেখে কাকে বিশ্বাস করবে তাহলে গণমাধ্যম?

বুবলী বলেন, ‘শেহজাদ খান বীর, আমার এবং শাকিবের সন্তান, আমাদের ছোট্ট রাজপুত্র। আমার সন্তান আমার গর্ব, আমার শক্তি। আপনাদের সবার কাছে আমাদের সন্তানের জন্য দোয়া কামনা করছি।’ পরে ফেসবুক পোস্ট দিয়ে সন্তানের জন্য দোয়া চান শাকিব ও বুবলী। দু’জনই সন্তানের সঙ্গে ছবিও পোস্ট করেন। আলাদা আলাদা পোস্ট দিলেও দু’জনের পোস্টের বক্তব্যও থাকে এক।

শাকিব ও বুবলী নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘আমরা চেয়েছিলাম একটি শুভ দিনক্ষণ দেখে আমাদের সন্তানকে সবার সম্মুখে আনতে। তবে আল্লাহ যা করেন, ভালোর জন্যই করেন। সেই সুখবর জানানোর জন্য আর বেশিদিন অপেক্ষা করতে হয়নি। শেহজাদ খান বীর আমার এবং বুবলীর সন্তান, আমাদের ছোট্ট রাজপুত্র। আমার সন্তান আমার গর্ব, আমার শক্তি। আপনাদের সবার কাছে আমাদের সন্তানের জন্য দোয়া কামনা করছি।’এর আগে কয়েক দিন ধরে শাকিব খান ও শবনম বুবলীকে নিয়ে চলতে থাকা গুঞ্জন প্রসঙ্গে চলচ্চিত্রেরই অনেকেই একই এই খবরটি নিশ্চিত

করেছিল। দু’জনরই পারিবারিক ঘনিষ্ঠ কয়েকটি সূত্রও নিশ্চিত করে, মা-বাবা হয়েছেন তারা। তারা এ-ও জানান, বুবলী মা হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে লং আইল্যান্ড জুয়িশ মেডিকেল হাসপাতালে। ২০২০ সালের ২১ মার্চ তিনি পুত্রসন্তানের জন্ম দেন। সন্তানের নাম রাখা হয় শেহজাদ খান বীর। সন্তান জন্মের আগে বুবলী আড়ালে চলে যান। পারিবারিক সূত্রটি জানিয়েছে, ২০২০ সালের জানুয়ারিতে এমিরেটস এয়ারলাইনসের একটি বিমানে চড়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান বুবলী। ৯ মাসের আড়াল ভেঙে তিনি সবার সামনে আসেন। ঢাকায় এসে বুবলী তখন গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘ফিল্মের

ওপরে নিউইয়র্কে পড়াশোনা করেছেন নাকি এতদিন!’ অথচ সেই খবরের কোনো সত্যতা মেলেনি। বরং ফিল্মে তার কলিগরা তখনই অফ দ্য রেকর্ড বলেছিলেন যে, তারা বিয়ে করেছেন এবং সন্তান হয়েছে। এ ধরনের প্রশ্ন করতে গেলেই বুবলী তার ফোন কেটে দিয়েছেন। উল্টো ধমকও দিয়েছেন মিথ্যাচারের জন্য! মূলত ‘বসগিরি’ ছবিতে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করে আলোচনায় আসেন শবনম বুবলী। ছবিতে অভিনয় করতে গিয়ে একটা পর্যায়ে তাদের প্রেমের সম্পর্কের খবর শোনা যায়। শাকিব খানের সঙ্গে শবনম বুবলীর প্রেমের সম্পর্কের বিষয়ে কয়েক বছর ধরেই আলোচনা

চলছিল। এসব আলোচনার এক ফাঁকে ২০১৭ সালের মার্চে প্রথম দু’জনের প্রেমের খবর সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। অথচ প্রেম ও বিয়ে নিয়ে একাধিক গুঞ্জন শোনা গেলেও দু’জনের কেউই এই বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছুই বলেননি। নিজেদের মতো করেই দু’জন চলচ্চিত্রের কাজ করে গেছেন। এরইমধ্যে ২৭ সেপ্টেম্বর বুবলী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে বেবি বাম্পের দুটি ছবি পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লিখেন, ‘মি উইথ মাই লাইফ, থ্রো ব্যাক আমেরিকা’। এরপরই রহস্য দানা বাঁধতে থাকে। সবাই বলাবলি করতে শুরু করেন, তাহলে কী বুবলী সত্যিই মা হয়েছেন?

শেষ পর্যন্ত সত্যি সত্যি জানা গেল, বুবলী মা হয়েছেন, তাও ২০২০ সালের ২১ মার্চ। গতকাল তারা দু’জন আনুষ্ঠানিকভাবে সন্তানের বিষয়টি সামনে আনলেন। এর আগে অপু বিশ্বাস মূলত বুবলীর সঙ্গে শাকিবের নতুন ছবি সাইনিংয়ের পর থেকেই একটু একটু করে অভিমান ও দূরত্বে চলে আসেন। একটি লাইভ শোতে সেটি স্বীকারও করেন। এটা ঐসব কাজ না পাওয়া ও ছবি থেকে বাদ পড়ে যাওয়ার রাগেরই বহিঃপ্রকাশ ছিল! একইভাবে গত ১

বছর ধরে বুবলীর সাথেও জুটি ভেঙে নতুন কিছু কাজের ঘোষণা এলেই মূলত বুবলীর স্বেচ্ছা গোপন রাখা সন্তানের খবরটি প্রকাশ্যে আনলেন। পাশাপাশি নায়িকা রাত্রির ঘরেও শাকিব খানের প্রথম সন্তান রয়েছে এমন খবরও নেটিজেন ও বিনোদন সাংবাদিকরা বিভিন্ন সোর্সের বরাত দিয়ে প্রকাশ করছেন। যদিও এর সত্যাসত্য কোনোটিই প্রমাণিত নয়। কারণ এর আগে প্রেমের বিষয়টি লুকিয়ে রাখার অভ্যেস থাকলেও এখন শুধু প্রেম নয়, বিবাহ, সংসার ও

সন্তানের বড় হওয়া অবধি তারকারা গণমাধ্যমকে বারবার মিথ্যাচার করেন নিজেরাই। আবার প্রকাশ্য টক শোতে বলেন সাংবাদিকরা তাদের নিয়ে নাকি বানোয়াট কথা বলেন! এ অবস্থায় তাই প্রশ্ন হলো-শাকিব খান ও তার স্ত্রীদের পরবর্তীতে যুক্তিকে কতটা বিশ্বাস করা যাবে? তারকারা আর কত গোপন আর মিথ্যাচার করবেন?

Leave a Comment

https://www.highperformancecpmgate.com/mpd7i4drgw?key=8c9246005c069d2f701e13c70787cd45