জুনিয়রকে বিয়ে, ডিভোর্স দিয়ে আত্মহত্যা!

রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার বেতপট্টি এলাকা থেকে এক কলেজছাত্রীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (২২ অক্টোবর) বিকেলে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।পুলিশ জানিয়েছে, মৃত কলেজছাত্রীর নাম মেরিনা আক্তার সিমু। তিনি দুর্গাপুর উপজেলার চককৃষপুর পানানগর এলাকার মৃত মোজ্জামেল হকের মেয়ে এবং নিউ গভ. ডিগ্রি কলেজের মার্কেটিং বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী।

এদিকে লাশ উদ্ধারের পর তুহিন নামের এক তরুণ নিজেকে ওই নারীর স্বামী পরিচয় দিয়েছেন। তুহিন বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী।তুহিন কালের কণ্ঠের কাছে দাবি করেন, সিমু তার বিবাহিত স্ত্রী।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর কোর্টের মাধ্যমে তারা বিয়ে করেন। বিয়ের পর সিমু তাকে তালাক দেন। যার কাগজ শুক্রবার (২১ অক্টোবর) পেয়েছেন তিনি। আজ শনিবার দুপুরে সিমু ফোন করলে তিনি ওই বাড়িতে আসেন এবং তুহিনকে দেখে সিমু দরজা লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন।

তুহিন জানালা দিয়ে তা দেখতে পেয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে তারা এসে সিমুর মৃতদেহ উদ্ধার করে। এরপর বোয়ালিয়া থানা পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।লাশ উদ্ধার হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাজহারুল ইসলাম।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় মেরিনার স্বামী তুহিনকে আমরা পুলিশ হেফাজতে নিয়েছি। আমরা জানতে পেরেছি, ওই মেয়ের পূর্বে আরেকটি বিয়ে ছিল। তুহিন ছিলো দ্বিতীয় স্বামী। তাকেও তালাক দিয়েছে। তাদের বিয়ে পরিবারের সবাই জানতো।ওসি আরো বলেন, আমরা ছেলে-মেয়ের পরিবারকে থানায় আসতে বলেছি। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হবে।