ছাত্রীকে বাথরুমে ঢুকতে দেখেই সাথে ঢুকে পড়ে প্রধান শিক্ষক, বাড়ি ফিরে ছাত্রী জানায় ঘটনা

ভোলা জেলার লালমোহন উপজেলার একটি এলাকায় এক স্কুলছাত্রীকে খারাপ কাজ করার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তাজুল ইসলাম নামের ঐ শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে। সেখানকার স্থানীয় থানা পুলিশ এই ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর অভিভাবক থানায় একটি মামলা দায়ের করে এবং এরপর গোপন সংবাদের মাধ্যমে ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করতে অভিযানে নামে পুলিশ। এরপর তাকে লালমোহন পৌরসভা এলাকা থেকে আটক করা হয়।

গ্রেফতারকৃত তাজুল ইসলাম উপজেলার রামগঞ্জ ইউনিয়নের পশ্চিম রাইচাঁদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। ভু”ক্তভোগী মেয়েটি ওই বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ে।

জানা যায়, বুধবার স্কুল চলাকালীন ওই ছাত্রী বাথরুমে গেলে সেখানে গিয়ে ঐ শিক্ষক তার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। পরে ওই ছাত্রী তার পরিবারকে বিষয়টি জানায়। এরপর স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ গ্রাম্য শালিশদারদের কাছে ঘটনাটি জানায় পরিবার। বুধবার রাতে ঐ মেয়েটির মা বাদী হয়ে থানায় এসে প্রধান শিক্ষক তাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

লালমোহন থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ এনায়েত হোসেন জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের পর এসআই মোঃ জাকির হোসেন কিছু সাথে থাকা পুলিশ সদস্যদের নিয়ে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করেন। বৃহস্পতিবার সকালে অভিযুক্ত শিক্ষককে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আকতারুজ্জামান মিলন বলেন, এ বিষয়ে আমাকে কেউ কিছু বলেনি। তাই সঠিক কিছু বলতে পারছি না।

আমিনুল ইসলাম যিনি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি বলেন, এ ঘটনার বিষয়ে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। পরবর্তিতে ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইন মোতাবে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এলাকাবাসী ঐ শিক্ষকের এই ধরনের বিবেকহীন কর্মকান্ডের জন্য ক্ষুদ্ধতা প্রকাশ করেন।