এবার প্রেমের টানে ইতালির তরুণী কক্সবাজারে

ভাষা-সংস্কৃতির ভেদাভেদ ভুলে রুনেক্স বড়ুয়া (২৭) নামে প্রেমিক যুবককে বিয়ে করে সুদূর ইতালী থেকে বাংলাদেশে এসেছেন রুবরেটা (২২) নামে এক ইতালীয়ান তরুণী।

বুধবার (৯ নভেম্বর) ইতালির সার্দেনিয়া শহর থেকে কক্সবাজারের রামু উপজেলার হাইটুপি গ্রামে বাড়িতে আসেন তিনি।রুনেক্স রামু হাইটুপি এলাকার ফ্রান্স প্রবাসী বিকাশ বড়ুয়ার ছেলে। তাদের আদিবাড়ি উখিয়া উপজেলার রাজা পালংয়ের সীলের ছড়া এলাকায়। এদিকে বিদেশি বধূকে দেখতে আশপাশের এলাকার মানুষ তাদের বাড়িতে ভিড় করছেন।

রুনেক্স বড়ুয়া জানান, হোটেলে একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে পরিচয় ও প্রেম। দীর্ঘ প্রেমের সম্পর্ক পরিণয়ে রূপ দিতে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন তারা। সম্প্রতি তিনি দেশে আসেন। আর প্রেমের সম্পর্কের টানে ইতালির সার্দেনিয়া শহর থেকে বাংলাদেশে আসেন রুবরেটা। এখানে বাঙালি পরিবেশ ও কালচারের সঙ্গে মেশার চেষ্টা করছে রুবরেটা। এ মাসেই পারিবারিকভাবে বিয়ের আয়োজন করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, হোটেলটিতে আমি রিসিপশনে কাজ করতাম। ওখানে পরিচয় রুবরেটা সঙ্গে। ভালোলাগা হতে ভালোবাসা। আমরা দেশে এসেছি বিয়ে করতে। আমার পরিবার তাকে গ্রহণ করে পরিবারের একজন হিসেবে গড়ে নিচ্ছেন।

ইতালিয়ান তরুণী রুবরেটা বলেন, মানুষের জীবন একটা। জীবন সঙ্গীও একটা হওয়া উচিত। আমার সমাজে সেটা নেই। আমি বিশ্বাস করি, রুনেক্স আমার জীবনে একমাত্র সঙ্গী হয়ে থাকবে। ওকে পেয়ে আমি দারুণ খুশি। তার পরিবারের সবার সঙ্গে আমার ভালো সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। সামনের দিনগুলো যেন এভাবে কাটে সেই প্রার্থনা করি।

রুনেক্সের ভাই শাওন বড়ুয়া বলেন, আমরা খুবই উচ্ছ্বসিত। ভাষাগত কিছু সমস্যা থাকলেও সব কিছুতেই মানিয়ে নিচ্ছেন বৌদি। বাঙালি পোশাকে ভাইয়ের সঙ্গে কক্সবাজারসহ বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থানগুলো ঘুরে বেড়াচ্ছেন তিনি। খবর পেয়ে এলাকার লোকজন বৌদিকে দেখার জন্য বাড়িতে ভিড় করছে।

তাদের মা সুমি বড়ুয়া বলেন, ঘরে বিদেশি বউ আনবো সেটা আমাদের স্বপ্ন ছিলো। রক্সেনকে দিয়ে সেটা বাস্তবে রূপ পাচ্ছে। আমরা রুবরেটাকে পেয়ে খুব খুশি। ধুমধাম করে তাদের বিয়ের আয়োজন করবো।