এবার পরীমণিকে নিয়ে মুখ খুললেন শরিফুল রাজ

এতোদিন চুপচাপ থাকলেও অবশেষে মুখ খুললেন শরিফুল রাজ। তিনি বলেন, ‘আমি সত্যিই জানি না সেখানে কি হয়েছিল। কিন্তু আমি শুধু একটা কথাই বলব-আমি একজন সুখী পরিবারের মানুষ। আমার স্ত্রী এবং সন্তান নিয়ে সন্তুষ্ট। আমি পরীকে খুব ভালোবাসি। এছাড়া আমি আমার যে কেনো

কাজের প্রতিই যত্নশীল থাকি। সংসারের প্রতি তো আরও যত্নশীল। সংসার, স্ত্রী, সন্তান ফেলে অন্য সম্পর্কে জড়াব, এমন অনৈতিক কথা ভাবতেই পারি না। আমার কথা হলো- যে যাই বলুক, যে কারণেই বলুক আমি এসব নিয়ে মোটেও বিচলিত নই। কারণ মিথ্যা কখনো স্থায়ী হয় না।’

এর আগে গেল বুধবার রাতে হুট করেই স্বামী শরিফুল রাজের সঙ্গে চিত্রনায়িকা মিমকে জড়ি স্ট্যাটাস দেন পরীমণি। একই স্ট্যাটাসে রাজ-মিম জুটির পরাণ ও দামাল ছবির পরিচালক রাফীকেও দালাল বলে আখ্যায়িত করেন। ফেসবুকে পরীমনির এমন স্ট্যাটাস দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরই মিম তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে কারও নাম উল্লেখ না করেই নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেন। এরপর পরীমণি আরেকটি স্ট্যাটাস দেন মিমকে নিয়ে। সেই স্ট্যাটাসে মিমের সঙ্গে তার কথা-বার্তার স্ক্রিণশটাও ফাঁস করেন। বিষয়টি নিয়ে সরগরম দেশের মিডিয়াপাড়া।

রাজ বলেন, পরী কেনো ওই স্ট্যাটাস দিয়েছে ওইটা পরীই বলতে পারবে। তাকেই প্রশ্ন করুন। আমার বিশ্বাস সেই সব ক্লিয়ার করবে। আমি শুধু বলবো, আমার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগই মিথ্যা। বিন্দুমাত্রও সত্যি নেই।রাজ আরও বলেন, আমি দৃঢ়ভাবে বলতে চাই আমার বিরুদ্ধে সব অভিযোগ মিথ্যা। পরীমণি কেন এমন করল একমাত্র সেই তা জানে এবং আমি আশা করব সে প্রকৃত বিষয়টি দ্রুত পরিষ্কার করবে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৭ অক্টোবর গোপনে বিয়ে করেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নায়িকা পরীমণি ও অভিনেতা শরিফুল রাজ। মাত্র সাতদিনের পরিচয়ে তারা বিয়ে করেন। এরপর গত ১০ জানুয়ারি সেই খবর প্রকাশ্যে আনেন তারা। মা হতে চলার খবরও একই দিনে প্রকাশ করেন পরীমণি। এরপর ২২ জানুয়ারি পারিবারিক আয়োজনে তাদের বিয়ে হয়। গত ১০ আগস্ট তাদের ঘর আলো করে আসে পুত্র সন্তান-শাহীম মুহাম্মদ রাজ্য।