‘আলোচনায় আসার ইচ্ছে হলে আমার কাছে আসেন’

সম্প্রতি মিসেস ইউনিভার্সের মঞ্চে জনপ্রিয় অভিনেতা মীর সাব্বিরের মন্তব্যে ক্ষুব্ধ হন উপস্থাপিকা ইশরাত পায়েল। বিষয়টি নিয়ে ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেন তিনি।এ নিয়ে পরে মুখ খোলেন মীর সাব্বির। এবার এই ঘটনায় উপস্থাপিকা ভাইরাল হতে মীর সাব্বিরকে পুঁজি করেছেন বলে মনে করেন অভিনেতা ও উপস্থাপক শাহরিয়ার নাজিম জয়।

সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে এ প্রসঙ্গে জয় লেখেন, অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে এবং কিছুটা দাবি খাটিয়ে অভিনেতা মীর সাব্বিরকে মঞ্চে কিছুটা মজা করার জন্য দাঁড় করালেন উপস্থাপিকা। বরিশালের ভাষায় মীর সাব্বির মজাও করলেন। তারপর সব শেষ। সবাই আনন্দ পেয়ে ঘরে গেল। উপস্থাপিকা বা কোনো মাধ্যম এই অনুষ্ঠান থেকে একটি ভাইরাল টপিক বানানোর জন্য মীর সাব্বিরের মজাটাকে পুঁজি করল। সারাদিন মীর সাব্বিরকে নিয়ে ট্রল। উপস্থাপিকা মীর সাব্বিরের বিরুদ্ধে কিছুটা অশালীনভাবেই বিভিন্ন মাধ্যমে বক্তব্য দিয়েই যাচ্ছেন।

ওই উপস্থাপিকার উদ্দেশ্য করে জয় লেখেন, আপনার যদি এতই আলোচনায় আসতে ইচ্ছে হয় আপনি আমার কাছে আসেন। এই বিষয়ে মীর সাব্বির আপনাকে অনেক দূর নিতে পারবে না। মাত্র দুই তিন দিন। আমার অনুষ্ঠান আপনাকে এক বছর আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রাখবে।‘গ্রাম গঞ্জের পিরিতি’ সিনেমার এই নায়ক ওই উপস্থাপিকা সাবধান হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে আরো লেখেন, মীর সাব্বিরকে নিয়ে ট্রল করেন অসুবিধা নাই। ভুলেও তাকে অসম্মান করার চেষ্টা কইরেন না। ট্রল কাকে বলে কত প্রকার ও কী কী বিষয়টা আপনাকে বোঝাতে চাই না।

সবশেষ তিনি যোগ করেন, ব্যক্তিগতভাবে আমার মনে হয়েছে মীর সাব্বির যখন বিবাহিত বলেছে তখন আপনার মন খুব খারাপ হয়েছে। তাই আপনি প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য মীর সাব্বির সম্পর্কে আজেবাজে কথা বলছেন।

প্রসঙ্গত, বিবাহিত নারীদের নিয়ে আয়োজিত প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান ‘মিসেস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’র ফাইনাল রাউন্ডে উপস্থাপকের দায়িত্বে ছিলেন ইশরাত পায়েল। অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে তিনি বিচারকের আসন থেকে ডেকে নেন মীর সাব্বিরকে। বরিশালের আঞ্চলিক ভাষায় তার জনপ্রিয় কোনো নাটকের সংলাপ বলতে অনুরোধ করেন। সাব্বির তখন বলেন, ‘আমার তো নাটকের সংলাপ মনে থাকে না, উপস্থিত কিছু একটা বলছি।

এরপর ইশরাত পায়েলের দিকে আঙুল তুলে তিনি বলেন, এই মাতারি তুমি এরকম উদলা গায়ে দাঁড়ায় আছো কিয়ের লাইগা। শুদ্ধ ভাষায় বাক্যটি হলো, এই মেয়ে তুমি এমন উলঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়ে আছ কেন?’ এই সংলাপে হেসে ওঠে ভরা আসর। হাসি থামাতে পারেননি পায়েলও। তবে হাসিটা যে তার মেকি ছিল তা প্রকাশ করেন এক ভিডিও বার্তায়। সেখানে সাব্বিরের বিরুদ্ধে তিনি নারীর পোশাক নিয়ে কটাক্ষ করার অভিযোগ তোলেন।