‘আব্বা, আমার জীবন শেষ কইরালাইতাছে’

‘আব্বা, তুমি আমারে বাচাঁও। বাপের কাছে কী কইতাম, পারলে আজকে আমারে নিয়ে যাও। আমার জীবন শেষ কইরালাইতাছে। আর কিছু দিন গেলে আমার লাশ পাইবায়।’সৌদি আরবে গৃহকর্মীর কাজে যাওয়া এক তরুণী গত ২ অক্টোবর ইমোতে এভাবেই করুণ নির্যাতনের কথা পিতার কাছে বলেন।

আব্দুল কুদ্দস নামের ওই পিতা মাধবপুর উপজেলার কমলপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি জানান, সংসারের অভাব ঘোচাতে গত ২৭ সেপ্টেম্বর আমার মেয়েটি সৌদি আরবে যায়। চুনারুঘাটের কাসেম নামের একজনের মাধ্যমে ঢাকার আরামবাগ শান ওভারসিস রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে গেছে।

সেখানে গিয়ে জীবন সংকটে পড়েছে। রোববারের (২ অক্টোবর) পর থেকে মেয়ের সঙ্গে আর যোগাযোগ করতে পারছি না।সৌদি থেকে মেয়েকে ফিরিয়ে আনতে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে লিখিত আবেদন করেছেন আব্দুল কুদ্দস। আজ বৃহস্পতিবার সকালে মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ

মঈনুল ইসলাম জানান, মেয়েটির পাসপোর্ট প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে দেওয়া হয়েছে। তাকে ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় রিয়াদের বাংলাদেশ দূতাবাসের সঙ্গে কথা বলছে। সৌদি আরবের সঙ্গে প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ভিকটিমকে যত দ্রুত সম্ভ দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। এ ব্যাপারে কাসেম বলেন, ভুক্তভোগীর বিষয়ে রিক্রুটিং এজেন্সিতে জানিয়েছি।

Leave a Comment