অপহরণের অভিযোগ স্ত্রীর, পুলিশ দেখল হোটেলে পরোটা-ভাজি খাচ্ছেন স্বামী

পাওনাদারের হাত থেকে বাঁচতে মিথ্যা অপহরণের নাটক সাজানোর অভিযোগ উঠেছে সজল কুমার রায় (৪৩) নামের এক কেমিকেল ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। স্বেচ্ছায় আত্মগোপণে থাকা ওই ব্যক্তিকে নিখোঁজের ২০ দিন পর চট্রগ্রাম থেকে উদ্ধার করে মঙ্গলবার ঢাকায় নিয়ে এসেছে উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ।

সজলের স্ত্রী থানায় অভিযোগ জানিয়েছিলেন, কিছু লোক তার স্বামীকে তুলে নিয়ে গেছে। এরপর তিনি ফিরে আসেননি। কিন্তু বেশ কয়েকদিন খোঁজাখুজির পর চট্টগ্রামে গিয়ে পুলিশ দেখেন, ব্যবসায়ী সজল তার এক বন্ধুসহ একটি হোটেলে পরটা-ভাজি খাচ্ছেন।বিষয়টি নিয়ে সজলকে জিজ্ঞেস করলে তিনি স্বীকার করেন,পাওনাদারের হাত থেকে বাঁচতে এমন অপহরণ নাটক সাজিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে উত্তরা পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) যুগান্তরকে বলেন, চলতি মাসের ৩ তারিখ থেকে ওই ব্যবসায়ীকে খুঁজে পাচ্ছিল না তার পরিবার। এ নিয়ে ব্যবসায়ীর স্ত্রী উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পাওয়ার পরই উত্তরা পশ্চিম থানার একটি টিম তাকে

উদ্ধারে নামেন। প্রযুক্তির সহযোগিতায় সোমবার তার অবস্থান চট্টগ্রামে নিশ্চিত হওয়া যায়। কিন্তু নির্দিষ্ট স্থানে গিয়ে দেখা যায় ব্যবসায়ী সজল তার এক বন্ধুসহ সেখানে একটি হোটেলে পরটা-ভাজি খাচ্ছেন! তাকে কেউ অপহরণও করেনি! তিনি স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে ছিলেন। পাওনাদারদের হাত থেকে রক্ষা পেতে নিজেই পালিয়ে গিয়ে অপহরণের নাটক সাজিয়েছেন।

ওসি জানান, তিনি চট্টগ্রামে ঘুরে বেড়ান, আর ১০ পুলিশ ২০ দিন তাকে খুঁজতে খুঁজতে হয়রান!জানা যায়, ওই ব্যবসায়ী স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে থাকার প্রথম কিছুদিন ঢাকার অদূরে গাজীপুর এবং পরবর্তীতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় অবস্থান নেন। এরপর তিনি চট্টগ্রামে চলে যান এবং সেখানে এক বন্ধুর সাথে ঘুরে-ফিরে সময় কাটাচ্ছিলেন তিনি।